ঢাকা, বুধবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২২ মে ২০২৪, ১৩ জিলকদ ১৪৪৫

নির্বাচন ও ইসি

উপজেলা নির্বাচনে জামানত বিধি সংশোধন চেয়ে লিগ্যাল নোটিশ   

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩৪ ঘণ্টা, এপ্রিল ৮, ২০২৪
উপজেলা নির্বাচনে জামানত বিধি সংশোধন চেয়ে লিগ্যাল নোটিশ
  

হবিগঞ্জ: উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদের জন্য জামানত বিধি সংশোধন করতে নির্বাচন কমিশন (ইসি) বরাবর লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছেন হবিগঞ্জের দুই প্রার্থী।
 
সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আবেদ রাজা সোমবার (৮ এপ্রিল) দুপুরে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।


 
এর আগে গত বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ সংশ্লিষ্ট ছয়জন বরাবর জেলার নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুল হক চৌধুরী সেলিম ও বাহুবল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ খলিলুর রহমান এ লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছেন।
 
সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আবেদ রাজা ও ফয়জুর রহমান তাদের পক্ষে লিগ্যাল নোটিশ দেন।
 
আইনজীবীরা জানান, সম্প্রতি নির্বাচন কমিশন উপজেলা চেয়ারম্যান পদে ১০ হাজারের স্থলে এক লাখ ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে পাঁচ হাজারের স্থলে ৭৫ হাজার টাকা জামানত নির্ধারণ করে দিয়েছে। জামানতের টাকার পরিমাণ আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার জন্য এ লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে।
 
বিধিতে শুধুমাত্র অনলাইনে নমিনেশন জমা দেওয়ার পাশাপাশি সরাসরিও জমা দেওয়ার সুযোগ যুক্ত  করতে তিনদিনের সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে, তা না হলে আইনের আশ্রয় নেওয়া হবে বলেও লিগ্যাল নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে।
 
এ প্রসঙ্গে নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলুল হক চৌধুরী সেলিম বলেন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জামানত ফি আগের মতো রাখা ও অনলাইনের পাশাপাশি সরাসরি মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার বিধান যুক্ত করার জন্য আমরা লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছি। জবাব না পেলে বিষয়টি আইনিভাবে মোকাবিলা করব।
 
বাহুবল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ খলিলুর রহমান বলেন, সংসদ সদস্য পদে নির্বাচনের জন্য জামানতের পরিমাণ ২৫ হাজার টাকা। কিন্তু উপজেলা চেয়ারম্যান পদে এক লাখ টাকা জামানত, যা অযৌক্তিক। এভাবে নির্বাচন হতে দেওয়া যাবে না।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩১ ঘণ্টা, এপ্রিল ৮, ২০২৪
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।