ঢাকা, রবিবার, ১৫ মাঘ ১৪২৯, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ০৬ রজব ১৪৪৪

নির্বাচন ও ইসি

আশাশুনিতে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় গুলিবিদ্ধ ১০

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৬, ২০২২
আশাশুনিতে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় গুলিবিদ্ধ ১০

সাতক্ষীরা: সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার খাজরা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় ১০ জন গুলিবিদ্ধসহ কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছেন।  

বুধবার ভোটের পরদিন বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে খাজরা ইউনিয়নের গদাইপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, নবনির্বাচিত আওয়ামী লীগ দলীয় চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ ডালিম তার সহযোগী কয়েকজন ইউপি সদস্যকে নিয়ে গদাইপুর গ্রামে অসুস্থ এক কর্মীকে দেখতে যাচ্ছিলেন। এসময় পরাজিত প্রার্থী অহিদুল ইসলামের বাড়ির ছাদের ওপর থেকে তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়া হয়। দফায় দফায় গুলির মুখে এলাকাজুড়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এসময় কমপক্ষে ২০ জন আহত হন। এর মধ্যে ১০ জনের গায়ে গুলি লেগেছে। আহতদের মধ্যে চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ ডালিম, রাসেল, সালাম মোল্লা, আসলাম, টুকু, ইমাম গাজী, মোল্লা সিরাজুল, আফসার আলী ও আব্দুল হান্নান মোল্লার নাম জানা গেছে।

চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ ডালিম ও তার সহযোগীরা অভিযোগ করে বলেছেন, পরাজিত প্রার্থী অহিদুল ইসলাম নিজেই তার বাড়ির ছাদের ওপর থেকে গুলি করেছেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে অহিদুল ইসলাম জানান, গতকাল রাত থেকে দফায় দফায় তারা আমার বাড়িতে হামলা চালান। সকালে গেট ভেঙে আমার বাড়িতে ঢোকার চেষ্টা করলে জীবন বাঁচাতে আমি আমার লাইসেন্সকৃত স্টেনগান দিয়ে ছররা গুলি ছুড়তে বাধ্য হয়েছি।

এদিকে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে উত্তেজনা থামাতে সাত-আট রাউন্ড ফাকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি শান্ত করেছে বলে  জানিয়েছেন আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম কবির।

তিনি আরও জানান, এখন পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। কাউকে এখনও গ্রেফতার করা যায়নি। সকাল ৯টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত টানা দুই ঘণ্টার সহিংসতায় আটজন আহত হয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৬, ২০২২
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa