ঢাকা, রবিবার, ১৫ মাঘ ১৪২৯, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ০৬ রজব ১৪৪৪

নির্বাচন ও ইসি

নিজে চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েও ভোট চাইছেন স্বামীর জন্য!

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫১১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২২
নিজে চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েও ভোট চাইছেন স্বামীর জন্য!

হবিগঞ্জ: হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার ৮ নম্বর শায়েস্তাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারাম্যান পদে প্রতীক পেলেন বর্তমান চেয়ারম্যান মো. বুলবুল খান ও তার স্ত্রী স্বতন্ত্র প্রার্থী মোছা. আছমা আক্তার লাকী।  

শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ মনিরুজ্জামান প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করেন।

বুলবুল খান পেয়েছেন আনারস প্রতীক ও তার স্ত্রী লাকী চশমা।

বুলবুল খান একটি অস্ত্র মামলায় আদালত থেকে সাজার আদেশপ্রাপ্ত আসামি। যদিও সাজার আদেশের উপর উচ্চ আদালতের স্থগিতাদেশ রয়েছে, তারপরও মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ার শঙ্কায় স্ত্রীকে দাঁড় করিয়েছিলেন বিকল্প প্রার্থী হিসেবে।

যাচাই-বাছাইয়ে নিজের মনোনয়নপত্র বৈধ হলে স্ত্রীর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করানোর পরিকল্পনা ছিল এ চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। তবে বৈধ ঘোষণার পরও একটু ঝুঁকিও নিতে চান না বিধায় দু’জনই প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়ে গেছেন বলে বুলবুল খান জানিয়েছেন। মনের বিরুদ্ধে স্বামীর সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়ে গেছেন বলে জানান তার স্ত্রী লাকীও।

স্ত্রীকে বিকল্প প্রার্থী হিসেবে দাঁড় করানোর ঘটনা হরহামেশাই ঘটে। তবে প্রতীক নিয়ে স্বামীর সঙ্গে স্ত্রীর প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামার ঘটনা কদাচিত। এজন্য শায়েস্তাগঞ্জ ইউপিতে স্বামী-স্ত্রীর প্রতিদ্বন্দ্বিতা এখন নির্বাচনী এলাকায় আলোচনা-সমালোচনার শীর্ষে।

ইউনিয়নের বাসিন্দা কয়েকজন বলেন, এর আগেও হবিগঞ্জে বিকল্প প্রার্থী হিসেবে স্বামীর সঙ্গে স্ত্রীকে মনোনয়নপত্র ক্রয়ের ঘটনা ঘটেছে। তবে শেষ পর্যন্ত প্রতীক নিয়ে স্ত্রীর প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকার বিষয়টি একেবারে নতুন। এনিয়ে অনেক সাধারণ ভোটার সিদ্ধান্তহীনতায় পড়তে পারেন।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ মনিরুজ্জামান বলেন, যেহেতু প্রতীক বরাদ্দ হয়েছে, তাই ব্যালটে স্বামী স্ত্রী দু’জনের প্রতীকই থাকবে। এখন নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার কোন বিধান নেই।

চেয়ারম্যান প্রার্থী আছমা আক্তার লাকী বলেন, নিজের স্বামীর সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকার ইচ্ছে আমার ছিল না। কিন্তু প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ষড়যন্ত্র করে আমার স্বামীর মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করানোর জন্য ষড়যন্ত্র শুরু করে। তাই আমি শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছি। তবে ভোটাররা যেন চশমা প্রতীকে ভোট না দিয়ে তার স্বামী বর্তমান চেয়ারম্যান বুলবুল খানের আনারস প্রতীকে ভোট দেন সেই অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

যোগাযোগ করা হলে বুলবুল খান বলেন, একটি মামলায় আমার বিরুদ্ধে সাজার আদেশ হয়েছিল। এজন্য মনোনয়নপত্র ঝুঁকিতে থাকায় বিপাকে পড়ে স্ত্রীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামিয়েছি। ইউনিয়নবাসী তাকে ভালবেসে ভোট দেবেন বলে আশাবাদী। তার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলাটি মিথ্যা বলেও দাবি করেন বুলবুল খান।

>>> চেয়ারম্যান পদে স্বামী-স্ত্রীর মনোনয়ন দাখিল

বাংলাদেশ সময়: ১৫০৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২২
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa