ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ মাঘ ১৪২৯, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৭ রজব ১৪৪৪

নির্বাচন ও ইসি

ছাত্রলীগ নেতাও হেফাজত মামলার আসামি: তৈমূর

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯০৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২২
ছাত্রলীগ নেতাও হেফাজত মামলার আসামি: তৈমূর ছবি: বাংলানিউজ

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেছেন, যাদের কাছে আমাদের অভিযোগ করার কথা তারাই নির্বাচনকে কলুষিত করছে এবং সুষ্ঠু পরিবেশে বাধা সৃষ্টি করছে। আমার বাসার সিসিটিভি ফুটেজ চেক করেন এবং যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে তাদের দেখেন।

দেখবেন তাদের বেছে বেছে গ্রেফতার করা হয়েছে। আদালত থেকে আমি কাগজ নিয়ে এসেছি। গত বছরের হেফাজতের মামলায় তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। এখন দেখা যায় ছাত্রলীগও হেফাজতের মামলার আসামি। হিন্দুও হেফাজতের মামলার আসামি। মানে হিন্দুরাও হেফাজত করে।

শনিবার (১৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় মাসদাইরের মজলুম মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

তৈমূর বলেন, যারা আমার নির্বাচনের নানা কাজের দায়িত্বে আছে তাদের গ্রেফতার করা হচ্ছে। এছাড়া হেফাজতের মামলায়ও গ্রেফতার করা হচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে ডিসি-এসপি সাহেব বলে আমি অভিযোগ করিনি। আমার কাছে অভিযোগ দেওয়ার সই করা কাগজ আছে।

তিনি বলেন, ঘণ্টাখানেক আগে আমার চিফ এজেন্ট এটিএম কামালের বাড়ি তল্লাশি করা হয়েছে। সিদ্ধিরগঞ্জ থানা বিএনপির সাবেক সভাপতির বাড়িতেও তারা গেছে। আমার সমর্থন করছে এমন আরও অনেকের বাড়িতেও যাচ্ছে। আমরা এতে ভীত না। আমরা মাঠে থাকবো। আমার মৃত্যু হলে নির্বাচনের মাঠেই হবে।

আওয়ামী লীগের প্রার্থীর বক্তব্য প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, আইভী বলেছেন নারায়ণগঞ্জে কোনো বহিরাগত নেই। তৈমূরের বাড়ি রূপগঞ্জ থেকে লোক আসে। আইভীর সমাবেশে রূপগঞ্জ ও আড়াইহাজারের এমপিরা নেতৃত্ব দিয়েছে। ছবিই তো তার সঙ্গে যে বহিরাগতরা আছে তা প্রমাণ করছে। এটিএম কামাল মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক। আমার চিফ এজেন্টের বাড়িতে পুলিশ যাবে কেন। আমি যখন এজেন্টের নামের তালিকা দিছি তখন তো বলতে পারতেন তিনি সন্ত্রাসী তাকে এজেন্ট দিয়েন না। আপনারা ভয় পাবেন না। আমার নেতাকর্মীরা মাঠে থাকবে আমিও মাঠে থাকবো। আমরা মাঠে থেকে প্রতিরোধ করবো। বাংলাদেশ বিশ্ব আইনের বাইরে না।

আচরণবিধি লঙ্ঘনের ব্যাপারে তৈমূর বলেন, আমি বহুবার অভিযোগ করেছি। আওয়ামী লীগের প্রার্থী আজকে বলেছেন চারিদিকে ষড়যন্ত্র, আমি একা হয়ে যাচ্ছি। এর মানে তার জনসমর্থন নেই। তাদের একমাত্র ক্ষমতা মামলা। আমার বিরুদ্ধে অসংখ্য মামলা আছে। দেশনেত্রী খালেদা জিয়া ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী একই সময় জেল খেটেছি। কামাল কী মাদক ব্যবসায়ী না সন্ত্রাসী। নির্বাচন কমিশন (ইসি) তাদের কমিটমেন্ট ঠিক আছে। না নেই তা ভোটের দিন দেখবে।

তিনি বলেন, রাজনীতি করতে পদ লাগে না। জনসমর্থন লাগে, কর্মী বাহিনী লাগে। আমাকে সারা পৃথিবী চেনে। বাধা দিলে বাধবে লড়াই। এটা অনেক পুরানো স্লোগান। বাঙালি প্রতিরোধ করবে।

আরও পড়ুন>>

>>> নারায়ণগঞ্জে হাতি ও নৌকার লড়াই রোববার

বাংলাদেশ সময়: ১৯০৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২২
এমআরপি/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa