ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২৩ শাবান ১৪৪৫

বিনোদন

‘চার নম্বর বিয়েটা কবে হলো?’ কনে সেজে কটাক্ষের শিকার শ্রাবন্তী!

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩১৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১২, ২০২৩
‘চার নম্বর বিয়েটা কবে হলো?’ কনে সেজে কটাক্ষের শিকার শ্রাবন্তী!

পরনে লাল বেনারসি, খোপায় গোঁজা গোলাপ, মাথায় টিকলি। কপালে চন্দনের টিপ, গা ভরা গহনা।

মাথায় শোলার মুকুটে ছোট পর্দার অভিনেতা রবি শ'র সঙ্গে নববধূর সাজে ফ্রেমবন্দি হয়েছেন টলিউডের অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চ্যাটার্জি। ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করা কিছু স্থিরচিত্র ও ভিডিওতে এমন লুকে দেখা যায় আলোচিত এই অভিনেত্রীকে।

ব্যক্তিগত জীবন ও পেশাগত কারণে বহুবার বউ সেজেছেন শ্রাবন্তী। এবারো একটি ফ্যাশন হাউজের জন্য এই ব্রাইডাল ফটোশুট করেন তিনি। সবকিছু ঠিকই ছিল। কিন্তু নেটিজেনরা বিষয়টিকে ভালোভাবে গ্রহণ করেননি। বরং রীতিমতো কটাক্ষ করেছেন শ্রাবন্তীকে।

ফারহান খান লেখেন, ‘আর কত বিয়ে করবা খুকি। ’ নন্দি নামে একজন লেখেন, ‘আবার বিয়ে। আমি কেন মরি না। ’ অভিজিৎ লেখেন, ‘পৃথিবীর একমাত্র নারী শ্রাবন্তী, যার বিয়ে বিয়ে খেলতে খুব ভালো লাগে। ’ রানা নামে একজন লেখেন, ‘ছেলের বিয়ের বয়স হয়ে গেছে, তবু বিয়ের শখ গেলো না। ’ 

আবার অনেকে জানতে চেয়েছেন, চতুর্থ বিয়ে আবার কবে হলো বা কবে করবেন? অনেকে নোংরা শব্দ ব্যবহার করে মন্তব্য করেছেন; যা প্রকাশ্যের অযোগ্য। আবার কেউ কেউ শ্রাবন্তীর রূপের প্রশংসাও করেছেন।

কলকাতার দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চ্যাটার্জি ২০০৩ সালে পরিচালক রাজীবকে বিয়ে করেন। তাদের ঘর আলো করে আসে পুত্রসন্তান অভিমন্যু। পরে রাজীবের সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয় তার। এরপর ২০১৬ সালের জুলাইয়ে প্রেমিক কৃষাণ ভিরাজকে বিয়ে করেন এই অভিনেত্রী। ২০১৭ সালের আগস্টের দিকে দ্বিতীয় সংসারেও ভাঙনের সুর বেজে উঠে। ২০১৭ সালের শেষের দিকে বিবাহবিচ্ছেদের কথা জানান শ্রাবন্তী।  

২০১৯ সালের ১৯ এপ্রিল অনেকটা গোপনে প্রেমিক রোশান সিংয়ের সঙ্গে সাতপাকে বাঁধা পড়েন। ভারতের চণ্ডীগড়ে পাঞ্জাবি রীতিতে তাদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। তৃতীয় সংসারও ভালোবেসে বাঁধলেও এখন আর একসঙ্গে থাকছেন না রোশান-শ্রাবন্তী। বিয়ে বিচ্ছেদের মামলাও দায়ের করেছেন শ্রাবন্তী। রোশান এ সংসার টিকিয়ে রাখতে চাইলেও নারাজ শ্রাবন্তী। বলা যায়, এ সংসারও ভেঙে গেছে। বাকি শুধু আনুষ্ঠানিকতা।

বাংলাদেশ সময়: ১৩১২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১২, ২০২৩
এনএটি/এমএইচএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।