ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ শাবান ১৪৪৫

বিনোদন

বিনোদনের জায়গা কমলে সমাজের অসঙ্গতি বাড়বে: বাঁধন

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৩, ২০২৩
বিনোদনের জায়গা কমলে সমাজের অসঙ্গতি বাড়বে: বাঁধন

‘মানুষের বিনোদনের জায়গা যত কমে যাবে, সমাজের অসঙ্গতি তত বাড়বে। তাই আমি আশা করবো, শুধু স্টার সিনেপ্লেক্স না, অন্যরাও নিজ উদ্যোগে এখানে আরও সিনেমা হল তৈরি করবেন।

’- সিনেমা হল বাড়ানোর দিকে ইঙ্গিত করে এমন মন্তব্য করেছেন অভিনেত্রী আজমেরি হক বাঁধন।

শুক্রবার (১৩ জানুয়ারি) রাজশাহীর বুলনপাড়া আই বাধ সংলগ্ন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাইটেক পার্কে জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনের মধ্য দিয়ে উদ্বোধন করা হয় মাল্টিপ্লেক্স সিনেমা হল স্টার সিনেপ্লেক্সের সপ্তম শাখা৷ এই আয়োজনে যোগ দিয়ে উল্লেখিত মন্তব্য করেন বাঁধন।

এসময় নিজের অনুভূতি প্রকাশ করে এই অভিনেত্রী বলেন, আমি ভীষণ আনন্দিত যে, সিনেপ্লেক্স এখানে তাদের একটি সিঙ্গেল স্ক্রিন চালু করেছে। তবে আমি আশা করবো, তারা আরো স্ক্রিন চালু করবে রাজশাহীতে। তনে এটা ভীষণ দুঃখজনক, রাজশাহীতে আগে যতগুলো হল ছিলো, সেগুলো ভেঙে ফেলা হয়েছে, বন্ধ হয়ে গেছে।

সম্প্রতি মুক্তি দেশের একটি ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পেয়েছে বাঁধন অভিনীত সিনেমা ‘গুটি’। যেখানে তাকে মাদকের কারবারি রূপে দেখা গেছে। শঙ্খ দাসগুপ্ত পরিচালিত কাজটি করে কেমন সারা পাচ্ছেন? এমন প্রশ্নে বাঁধন বলেন, ভালো-মন্দ দুই ধরনের মন্তব্য করেছেন দর্শকরা। বলা যায়, মিশ্র প্রতিক্রিয়া পাচ্ছি।

এদিকে, সিনেপ্লেক্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। আরো উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক৷

জানা গেছে, রাজশাহীর এই মাল্টিপ্লেক্স সিনেমা হলে শনিবার (১৪ জানুয়ারি) থেকে দর্শকরা সিনেমা দেখতে পাবে। এখানে আসন সংখ্যা ১৭২ টি। বরাবরের মতো নান্দনিক পরিবেশ, সর্বাধুনিক প্রযুক্তিসম্বলিত সাউন্ড সিস্টেম, জায়ান্ট স্ক্রিনসহ বিশ্বমানের সিনেমা হলের যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা এখানেও থাকছে বলে অনুষ্ঠানে জানান স্টার সিনেপ্লেক্সের চেয়ারম্যান মাহবুব রহমান রুহেল।  

প্রসঙ্গত, রাজশাহী শহরে নব্বইয়ের দশক পর্যন্ত সাতটি সিনেমা হল ব্যাপক জনপ্রিয় ছিল। সে সময় ভালো কিছু সিনেমা নির্মাণ হওয়ায় হলগুলোতে ভিড় লেগেই থাকত সিনেমাপ্রেমীদের। কিন্তু ২০১০ সালের পর চলচ্চিত্রের দুরবস্থা শুরু হলে বন্ধ হতে থাকে হলগুলো।  

সবশেষ ২০১৮ সালে বন্ধ হয় ‘উপহার’ সিনেমা হলটি। একের পর এক সিনেমা হল বন্ধ হওয়ায় একেবারেই হলশূন্য হয়ে পড়ে শহরটি। নতুন সিনেপ্লেক্স চালু হওয়ায় সেই শূন্যতা কাটিয়ে আবারো হলমুখী হবেন রাজশাহী জেলার সিনেমাপ্রেমী মানুষেরা-এমনটাই প্রত্যাশা স্থানীয়দের।

বাংলাদেশ সময়: ২০১৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৩, ২০২৩
এনএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।