ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১ শাবান ১৪৪৫

বিনোদন

এবার ঢাকা আসতে পেরে ভালো লাগছে: সব্যসাচী

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০২১৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২৩
এবার ঢাকা আসতে পেরে ভালো লাগছে: সব্যসাচী সব্যসাচী চক্রবর্তী, ছবি: নাজমুল আহসান তালুকদার

‘ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব’-এর ২১তম আসর শুরু হয়েছে। শনিবার (১৪ জানুয়ারি) বিকালে আনুষ্ঠানিকভাবে পর্দা উঠলো উৎসবের।

এতে উদ্বোধনী সিনেমা হিসেবে প্রদর্শিত হয়েছে দেশের প্রথম আন্তর্জাতিক সিনেমা ‘জেকে ১৯৭১’।
 
শনিবার বিকেলে জাতীয় জাদুঘরের মূল মিলনায়নে অনুষ্ঠিত হয় উদ্বোধনী কার্যক্রম। এ সময় অংশ নিয়েছেন কলকাতার খ্যাতিমান অভিনেতা ও ‘জেকে ১৯৭১’র অন্যতম অভিনেতা
সব্যসাচী চক্রবর্তী।  

পর্দার ফেলুদা হিসেবে নন্দিত এই অভিনেতা বলেন, আমার সৌভাগ্য যে, ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধনী মঞ্চে বসার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। আমাকে এই সুযোগ দেওয়ায় কৃতজ্ঞ, ধন্য, গৌরবান্বিত। এর আগেও এই উৎসবে আসার কথা ছিলো। কিন্তু করোনার কারণে আসা হয়নি। এবার আসতে পেরে ভালো লাগছে।

কথা বলার সময় সব্যসাচী বলেন, এটা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। সুতরাং পুরোটা যদি বাংলায় বলি, তাহলে ভালো দেখাবে না। তবে বাংলা আমাদের মাতৃভাষা। বাংলা বলতে গর্ববোধ করি বলেই বাংলাতে কথাগুলো বলেছি।

ইংরেজিতে অনুভূতি প্রকাশ করে অভিনেতা বলেন, আমার জন্য আরোমআনন্দের ব্যাপার হলো, যেই সিনেমা (জেকে ১৯৭১) দিয়ে উৎসবটি শুরু হচ্ছে, আমিও সেটার ক্ষুদ্র একটি অংশ। আমি এখানে একজন পাকিস্তানির ভূমিকায় অভিনয় করেছি। যে বিমানটি ছিনতাই হয়, আমি সেটার ক্যাপ্টেন।

‘জেকে ১৯৭১’ নির্মাণ করেছেন ফাখরুল আরেফিন খান। এই নির্মাতার ‘গণ্ডি’ সিনেমায়ও অভিনয় করেছিলেন সব্যসাচী।  

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে সহায়তার জন্য একটি পাকিস্তানি বিমান ছিনতাই করেছিলেন ফরাসি যুবক জ্যঁ কুয়ে। তার সেই বীরত্বগাঁথা নিয়েই সাজানো হয়েছে ‘জেকে ১৯৭১’ ছবির গল্প। এতে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছেন কলকাতার সৌরভ শুভ্র দাশ। আরও আছেন যুক্তরাষ্ট্রের অভিনেতা ফ্রান্সিসকো রেমন্ড, রুশ অভিনেত্রী ডেরিয়া গভ্রুসেনকো, অভিনেতা নিকোলাই নভোমিনাস্কি, পশ্চিমবঙ্গের ইন্দ্রনীল প্রমুখ।

এদিকে, উৎসবের প্রথম দিন উৎসবে আরো একটি সিনেমা প্রদর্শনী হয়। সেটির নাম ‘দ্য হান্টারেস’। চিলির এই সিনেমা নির্মাণ করেছেন মার্টিন ডুপ্লাকুয়েট। এটি সন্ধ্যা ৭টায় দেখানো হয়।
 
অন্যদিকে, দ্বিতীয় দিন রবিবার (১৫ জানুয়ারি) তিনটি বিভাগে মোট পাঁচটি সিনেমা প্রদর্শিত হবে। সকাল সাড়ে ১০টায় এশিয়ান কম্পিটিশন বিভাগে দেখানো হবে তুরস্কের ‘ব্ল্যাক নাইট’। এটি নির্মাণ করেছেন ওজান আল্পার। একই বিভাগে দুপুর ১টায় প্রদর্শিত হবে উজবেকিস্তানের ‘দ্য লেগেসি’। খিলোল নাসিমোভ নির্মিত ছবিটির দৈর্ঘ্য ৯০ মিনিট।
 
বিকাল ৩টায় তুরস্ক থেকে আসা ‘ক্লোন্দিক’ প্রদর্শিত হবে। যেটি বানিয়েছেন মারইয়ানা এর গরবাচ। এটিও থাকছে এশিয়ান কম্পিটিশন ক্যাটাগরিতে। বিকাল ৫টায় বাংলাদেশ প্যানোরমা বিভাগে দেখানো হবে আশিক মুস্তাফা নির্মিত ‘থার্টি-ফাইভ’। সবশেষে সন্ধ্যা ৭টায় সিনেমা অব দ্য ওয়ার্ল্ড বিভাগে প্রদর্শিত হবে সৈয়দ সালাহউদ্দিনের ‘যা হারিয়ে যায়’।
 
এবারের উৎসবে ৭১টি দেশের মোট ২৫২টি সিনেমা অংশ নিচ্ছে। সিনেমাগুলো দেখা যাবে রাজধানীর পাঁচটি ভেন্যুতে। এগুলো হলো- বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, জাতীয় জাদুঘরের মূল ও সুফিয়া কামাল মিলনায়তন, আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ ও স্টার সিনেপ্লেক্স।

বাংলাদেশ সময়: ০২১১ ঘণ্টা,জানুয়ারি ১৫, ২০২৩
এনএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।