ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ বৈশাখ ১৪৩১, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১৫ শাওয়াল ১৪৪৫

বিনোদন

‘পাঠান’ আমদানির বিষয়ে যা বললেন ওবায়দুল কাদের

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৭, ২০২৩
‘পাঠান’ আমদানির বিষয়ে যা বললেন ওবায়দুল কাদের

মুক্তির পর দাপটের সঙ্গে ব্যবসা করছে শাহরুখ খানের বহুল প্রতীক্ষিত চলচ্চিত্র ‘পাঠান’। সাফটা চুক্তির আওতায় বাংলাদেশে ‘পাঠান’ মুক্তি নিয়ে বেশ আলোড়ন তৈরি হয়েছে।

দেশে হিন্দি সিনেমার আমদানি নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে যুক্তির লড়াই শুরু হয়েছে চলচ্চিত্রপাড়ায়।

শুক্রবার (২৭ জানুয়ারি) বাংলাদেশে মুক্তি পাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হলেও অদৃশ্য বাঁধায় আবারো সেই মুক্তির সম্ভাবনা ঝুলে রয়েছে। এ বিষয়ে দেশীয় চলচ্চিত্র নির্মাতা ও তারকারা ভিন্ন ভিন্ন মতামত প্রকাশ করছেন। কারো মতে দেশে হিন্দি চলচ্চিত্র আসা উচিত। এতে করে সিনেমাহল গুলোতে দর্শকদের উপস্থিতি বাড়বে।

আবার কারো কারো মতে, বাংলাদেশে হিন্দি চলচ্চিত্র এলে পরিনাম হবে ভয়াবহ! তবে এসব তর্ক বিতর্কের মাঝেই এবার দেশে হিন্দি চলচ্চিত্র আমদানির বিষয়ে মুখ খুললেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তার মতে, ‘পাঠান’ বাংলাদেশে মুক্তি পাওয়া উচিত।

বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারি) সাংবাদিকদের সঙ্গে কথোপকথনে বাংলাদেশে ‘পাঠান’ মুক্তির প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘পাঠান’ মুক্তি পেলে ভালো হয়। দেওয়া নেওয়া অবশ্যই ভালো। এতে আমরা আরো সমৃদ্ধ হব।

নিজেকে একজন চলচ্চিত্র অনুরাগী দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, একসময় বাংলা সিনেমা দেখতাম। আমি মূলত উত্তম কুমার ও সুচিত্রার সিনেমা বেশি দেখতাম। বাংলা সিনেমার সবেচেয়ে ভালো অভিনেতা ও অভিনেত্রী তারা দুজন। তাদের কোনো তুলনা হয় না। রহমান-শবনব জুটির সিনেমাও দেখেছি। সাংঘাতিক হিট ছিল তারা। এখন অনেকেই তাদের চেনে না। ববিতা, শাবানা, রাজ্জাক, নাদিম এদের সিনেমাও দেখা হতো।

এদিকে, বাংলাদেশে ‘পাঠান’ মুক্তির প্রক্রিয়া এখনো চলমান রয়েছে। চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির পর এবার শিল্পী সমিতিও হিন্দি চলচ্চিত্র আমদানিতে সম্মতি প্রকাশ করেছে। এর আগে শিল্পী সমিতির পক্ষ থেকে নিপুণ বলেছেন, তিনি ও শিল্পী সমিতি হিন্দি সিনেমা আমদানির পক্ষে। শিল্পী সমিতির পক্ষ থেকে এমন একটি সিদ্ধান্ত প্রাথমিকভাবে নেওয়া হয়েছে।  

হিন্দি সিনেমা মুক্তিতে শিল্পী সমিতির আপত্তি নেই, তবে একটা শর্ত রয়েছে। তারা এই সিনেমা থেকে আয়ের ১০ ভাগ চায়। এদিকে শিল্পী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জায়েদ মনে করেন, হিন্দি সিনেমা আমদানির ফলে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রি নেপালের মতো হবে।

তবে সকল তর্ক-বিতর্ক এড়িয়ে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রপ্রেমীরাও চাইছে ‘পাঠান’ আসুক। বাংলাদেশের সিনেমাহলে ‘পাঠান’ দেখতে উৎসুক সিনেমাপ্রেমীরা। দেখা যাক, শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে ‘পাঠান’র আগমন কতটা ফলপ্রসু হয়! 

বাংলাদেশ সময়: ২১১৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৭, ২০২৩ 
এনএটি 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।