ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২১ মে ২০২৪, ১২ জিলকদ ১৪৪৫

বিনোদন

হোঁচট খেয়েই হাঁটতে শিখেছি, আবারও হোঁচট খেলাম: রাজ

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬১২ ঘণ্টা, মে ৩১, ২০২৩
হোঁচট খেয়েই হাঁটতে শিখেছি, আবারও হোঁচট খেলাম: রাজ শরিফুল রাজ

এই সময়ের আলোচিত অভিনেতা শরিফুল রাজের ফেসবুক আইডি থেকে সোমবার (২৯ মে) দিবাগত রাতে কয়েকটি স্থিরচিত্র ও ভিডিও ফাঁস হয়। ভিডিওতে দেখা গেছে, অভিনেত্রী সুনেরাহ বিনতে কামাল, তানজিন তিশা ও নাজিফা তুষিকে।

প্রতিটি ভিডিওতে তাদেরকে ‘অস্বাভাবিক’ অবস্থায় দেখা গেছে। কথাবার্তায়ও ছিল আপত্তিকর ভাষা।

বিষয়টি নিয়ে সামাজিকমাধ্যমে আলোচনা-সমালোচনা চলছেই। তবে কীভাবে ছবি-ভিডিও ছড়িয়েছে জানেন না শরিফুল রাজ। তার দাবি ফেসবুক আইডিও হ্যাক হয়নি। এর চেয়ে অবাক কাণ্ড, যা শুনলে চমকে ওঠার মতো তা হচ্ছে- এসব ভিডিও ফুটেজ নাকি রাজের কাছে নেই!

মঙ্গলবার (৩০ মে) রাতে একটি গণমাধ্যমকে এসব জানিয়েছেন রাজ নিজেই। এবার ফেসবুকে দীর্ঘ স্ট্যাটাস দিয়েছেন এই অভিনেতা।  

সেখানে রাজ লেখেন, মানুষ প্রতি মুহূর্তে একটু একটু করে পরিণত হয়। জন্মের পর নিজের পায়ে চলতে শিখতেও কয়েক বছর লেগে যায়। আর ঠিকঠাক কথা বলা শিখতে লেগে যায় আরও কিছু বছর। কিন্তু এই বলা আর চলার যাত্রা কখনও শেষ হয় না। তবে এই যাত্রায় আমরা কিছু মানুষের সঙ্গে পরিচিত হই, যাদের সঙ্গে সুখ, দুঃখ, কাজের আলাপ কিংবা কাজহীন দিনের আলাপ, সুস্থতা এবং পাগলামী সবকিছুই ভাগ করে নেওয়া যায়। যাদের সঙ্গে চলার বা কথা বলার বিশেষ কোনো শর্ত থাকে না। শর্ত থাকে কেবল একটাই- সেটার নাম বন্ধুত্ব।  

এই অভিনেতা লেখেন, নিশ্চয়ই আপনাদের প্রত্যেকেরই এমন অনেক বন্ধু রয়েছে- যাদের সঙ্গে আপনারা আভিধানিক শব্দে কথা বলেন না, একসাথে পথ চলার সময় ভবিষ্যৎ ভাবনা নিয়ে পথ চলেন না। যাদের সাথে অনেক বেফাঁস কথা বলেন, কারণ বন্ধুত্ব তো এমনই। লিঙ্গ, বর্ণ, বয়সসহ সকল সীমারেখার ওপরে মানুষের বন্ধুত্ব।

যোগ করে রাজ লেখেন, কিন্তু সমস্যা হয়, যখন কেউ অসৎ উদ্দেশ্যে বন্ধুত্বের মতো সম্পর্কের মাঝখানে লৈঙ্গিক পরিচয়ের সীমারেখা টেনে, ব্যাপারটাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে চায়। যখন কেউ বন্ধুদের মধ্যকার দ্বিধাহীন আড্ডার আলাপ টক অব দ্যা টাউনে পরিণত করে। আমিও তেমনই এক সমস্যায় পড়েছি।

নীরবতা মানেই দূর্বলতা না উল্লেখ করে রাজের ভাষ্য, আমি গত কয়েকদিন যাবৎ সিনেমার ডাবিং নিয়ে ব্যস্ত, আমার সিনেমার কিছু গল্পের স্ক্রিপ্ট রিডিং করার কথা, এইগুলা নিয়েই আমি ঠিকমতো সময় দিতে পারছি না। যখনই সময় পাচ্ছি গল্পের ভিতরে ঢুকে যাচ্ছি, তার মধ্য হঠাৎ করে কে বা কারা এসব করে আমাকে হেনস্তার শিকার করছে যা ভাবতেই আমি হতবাক হয়ে গেলাম। আমাকে নিয়ে শেষ যতদিন থেকে নানাবিধ সত্য-মিথ্যার মিশ্রণে ঘটনার চাউর করছে আমি তার শুরু থেকেই নীরব ছিলাম। কিন্তু নীরবতা মানেই দূর্বলতা না।  

রাজ আরও লেখেন, আমার ফেসবুক প্রোফাইলের পাসওয়ার্ড/অ্যাকসেস এমন কারো কাছে আছে অথবা হ্যাক করে কেউ আমার দীর্ঘকালের বন্ধু ও সহকর্মীদের সঙ্গের নিতান্ত বন্ধুত্বের আড্ডার ঘটনা লিক করে দেয়। যে বা যারা এই কাজ করেছে, তাদের উদ্দেশ্য ছিল আমাদের হেনস্তা করা। হয়তো তারা সফলও হয়েছে।  

সুনেরাহ বিনতে কামাল, তানজিন তিশা ও নাজিফা তুষির কাছে দুঃখ প্রকাশ করে রাজ। তিনি যোগ করলেন, আমার তিন বন্ধু ও সহকর্মীর কাছে শর্তহীন দুঃখ প্রকাশ করছি; যারা আমার খুব ভাল বন্ধু দীর্ঘদিনের। সেই বন্ধুত্বের কোন লিঙ্গ নেই। আমার কারণে তাদের হেনস্তার শিকার হতে হলো বলে। আমার সকল শুভাকাঙ্ক্ষী, সমর্থক ও সমালোচকদের কাছেও আমি দুঃখ প্রকাশ করছি- বন্ধুদের আড্ডার ঘটনা নোংরা উদ্দ্যেশে স্প্রেড করে মিসলিড করা হয়েছে বলে।

দর্শকদের উদ্দেশে রাজ যুক্ত করলেন কিছু কথা। তা হচ্ছে- বহুবার হোঁচট খেয়েই তো হাঁটতে শিখেছি! আবারও হোঁচট খেলাম। আপনাদের দোয়া ও ভালোবাসা সাথে থাকলে নিশ্চয় আরো পরিণত হবো, শিখবো অতীতের ভুল থেকে। আমাকে আপনাদের দোয়া ও ভালোবাসায় রাখবেন। কারণ আপনাদের সমর্থন ছাড়া একজন শরিফুল রাজ কিছুই নয়। জগতের সকল প্রাণী সুখী হোক। সবাইকে ভালোবাসা ও শুভকামনা।

বাংলাদেশ সময়: ১৬১২ ঘণ্টা, মে ৩১, ২০২৩
এনএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।