ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৮ শাবান ১৪৪৫

পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য

বানিয়াচংয়ে ‘এশীয় শামুকখোল’ শিকারির জরিমানা

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১৫৯ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩, ২০২৩
বানিয়াচংয়ে ‘এশীয় শামুকখোল’ শিকারির জরিমানা ফারুক মিয়া

হবিগঞ্জ: হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে এয়ার গান দিয়ে পাখি শিকারের অপরাধে ফারুক মিয়া নামে এক ব্যক্তিকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।  

শনিবার (২ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় বানিয়াচং উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. সাইফুল ইসলাম এ জরিমানা করেন।

 

জরিমানাপ্রাপ্ত ফারুক ওই উপজেলা সদরের ৩ নম্বর দক্ষিণ-পূর্ব ইউনিয়নের জাতুকর্ণপাড়ার বাসিন্দা।

এদিকে, উপজেলা সদরে বড় বাজারের ‘হিমেল হোটেল’ রেস্তোরাঁয় পাখির মাংস বিক্রির অভিযোগ থাকায় একইদিন তিনি সেখানেও অভিযান পরিচালনা করেছেন।  

স্থানীয়রা জানান, বানিয়াচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সংলগ্ন বাঁশের একটি ঝাড়ে একদল ‘এশীয় শামুকখোল’ বাসা বেঁধেছে। পাখিগুলো এখান থেকে প্রতিদিন খাবারের সন্ধানে হাওরে যায়। সম্প্রতি আশপাশের লোকজন একটি-দুটি করে পাখি পথের ধারে মরে পড়ে থাকতে দেখেন। এনিয়ে পাখিপ্রেমীরা চিন্তিত ছিলেন। পরে শনিবার সন্ধ্যায় ফারুককে পাখির ঝাঁকে এয়ার গান দিয়ে গুলি ছুড়তে দেখা যায়। বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকে জানান স্থানীয়রা।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. সাইফুল ইসলাম খবর পেয়ে ফারুক মিয়ার বাড়িতে গিয়ে তাকে পাননি। সে সময় তিনি তার কার্যালয়ে ফারুককে তলব করেন। পরে ফারুক সেখানে গিয়ে তার দোষ শিকার করলে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ আইনে এক হাজার টাকা জরিমানা করেন।  

এ তথ্য নিশ্চিত তরে এসিল্যান্ড জানান, ফারুক মিয়ার ব্যবহৃত এয়ার গানটি অন্য আরেকজন প্রবাসীর। শিগগিরই ওই প্রবাসীকে এয়ার গানটি জমা দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।  

বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ সোসাইটি (ডব্লিউসিএস) বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন প্রোগ্রামের সমন্বয়কারী সামিউল মোহসেনিন বাংলানিউজকে জানান, এশীয় শামুকখোলকে শামুকভাঙা অথবা শামুকখোলও বলা হয়। এর ইংরেজি নাম Asian open-bill।  বৈজ্ঞানিক নাম Anastomus oscitans। শরীরের মাপ ৯৯ সেন্টিমিটার। মাটিতে দাঁড়ানো অবস্থায় এর উচ্চতা শরীরের মাপের সমান।

বড়সড় এ পাখিটির মধ্যে বোকাসোকা নিরীহভাব আছে। এরা বাসা বাঁধে ভাদ্র মাসে। জ্যৈষ্ঠ মাসেও বাসা করতে দেখা যায়। দু’জনে মিলে বাসা সাজায়। পুরুষ পাখিটি উপকরণে বেশি আনে। ডিম পাড়ে দুই থেকে চারটি। ৩০-৩৩ দিনে ডিম থেকে বাচ্চা ফোটে। বাচ্চারা উড়তে শেখে ৫০-৬০ দিনে।  

বানিয়াচংয়ে ‘এশীয় শামুকখোল’ শিকারের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ অধিদপ্তর হবিগঞ্জ রেঞ্জের কর্মকর্তা তোফায়েল আহমেদ চৌধুরী।  

তিনি বলেন, এই শিকারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া দরকার।

বাংলাদেশ সময়: ১১৫৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৩, ২০২৩
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।