ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৮ মে ২০২৪, ১৯ জিলকদ ১৪৪৫

আইন ও আদালত

নৈশপ্রহরী হত্যা, ২ যুগ পর ৩ জনের যাবজ্জীবন 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫২৬ ঘণ্টা, মে ২৯, ২০২৩
নৈশপ্রহরী হত্যা, ২ যুগ পর ৩ জনের যাবজ্জীবন 

দিনাজপুর: দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে নৈশপ্রহরী তজিম উদ্দিন হত্যা মামলায় তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাদের ২০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও ছয় মাস করে সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

দীর্ঘ দুই যুগ পরে এ রায় হলো।

সোমবার (২৯ মে) দুপুর ১২টার দিকে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-২ এর বিচারক শ্যাম সুন্দর রায় এ আদেশ দেন।  

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- জেলার চিরিরবন্দর উপজেলার দক্ষিণ সুকদেবপুর এলাকার আফজাল হোসেন, একই উপজেলার উত্তর ভোলানাথপুর আব্দুল লতিফ এবং শামন্ডল ওরফে শামসুল হক।  

অভিযোগ প্রমাণ না হওয়ায় আব্দুল কাফী নামে একজনকে খালাস দেওয়া হয়েছে।  হত্যার শিকার তজিম উদ্দিনের বাড়ি চিরিরবন্দর উপজেলার উত্তর ভোলানাথপুরে।  

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, চিরিরবন্দর উপজেলার কারেন্টহাট এলাকায় শামসুদ্দিনের চাতালে নৈশপ্রহরীর চাকরি করতেন তজিম উদ্দিন। ১৯৯৭ সালের ৩১ জুলাই বিকেলে প্রতিদিনের মতো কাজে যান তিনি। এরপর আর বাড়ি না ফেরায় তাকে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন তার স্ত্রী আরজিনা। অনেক খোঁজার পর ৩ আগস্ট উপজেলার আউলিয়াপুকুর ইউনিয়নের দামুয়া পুকুরে কচুরিপানার ভেতরে তজিম উদ্দিনের মরদেহ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী ৬ আগস্ট থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।  

মামলার রায় সূত্রে জানা গেছে, তজিম উদ্দিনকে গলা এবং পেট কেটে হত্যা করা হয়। পরে তার মরদেহ কচুরিপানার মধ্যে লুকিয়ে রাখা হয়। পুলিশের তদন্তে আব্দুল কাফী, মোখলেছার রহমান, আফজাল হোসেন, আব্দুল লতিফ ও শামসুল হকের নাম উঠে আসে। মামলা চলাকালে মারা যান মোখলেছার রহমান। তাদের মধ্যে তিনজনের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় তাদের সাজা দেওয়া হয়। আর অভিযোগ প্রমাণ না হওয়ায় খালাস পান আব্দুল কাফী।  

এ বিষয়ে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ-আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর শাহ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, দীর্ঘ সময় পর হলেও রায় হলো। এ রায়ে রাষ্ট্রপক্ষ ও নিহতের পরিবার সন্তুষ্ট।  

বাংলাদেশ সময়: ১৫২২ ঘণ্টা, মে ২৯, ২০২৩ 
এসআই 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।