ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

লাইফস্টাইল

এই গরমে বাইরে যেতে সঙ্গে রাখুন সানগ্লাস

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১২৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ২২, ২০২৪
এই গরমে বাইরে যেতে সঙ্গে রাখুন সানগ্লাস

এই গরমে বাইরে বেরোনোর সময় প্রয়োজনীয় অনুষঙ্গের সঙ্গে সানগ্লাস নিতে ভুলি না আমরা। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সানগ্লাসের ডিজাইনেরও পরিবর্তন এসেছে।

তবে শুধুমাত্র ব্র্যান্ডেড সানগ্লাসই না- ব্যক্তিত্ব, চুলের রং ও মুখের আদলের সঙ্গে মিলিয়ে সানগ্লাস কেনা উচিত।  
নিজের মুখের আদল বুঝে সানগ্লাস বাছাই করুন। মুখের আদল বিভিন্ন রকম হতে পারে। যেমন- গোলাকার, পানপাতা, চারকোনা বা ডায়ামন্ড শেপ।  

সানগ্লাসের শেপ সাধারণত মুখের আদলের বিপরীত শেপের কেনা উচিত। যেমন মুখের আদল যদি গোলাকার হয় তাহলে একটু কোনাচে ধাঁচের সানগ্লাস বাছাই করুন।  
চারকোনা শেপের মুখের জন্য গোলাকার সানগ্লাস ভালো মানায়। এক্ষেত্রে গোল ফ্রেম মুখের আদলকে তুলনামূলক কোমল দেখাতে সাহায্য করবে। এই শেপের বড় বা ছোট যেকোনো আকৃতিই মানানসই।

পানপাতার মতো মুখের ক্ষেত্রে চোয়ালের অংশ ও কপালের অংশের সামঞ্জস্য রাখতে মোটা ফ্রেমের সানগ্লাস বাছাই করুন। এক্ষেত্রে সানগ্লাসের নিচের অংশ ওপরের অংশের তুলনায় ভারি দেখে কিনুন। এতে মুখের নিচের অংশ চওড়া দেখাবে।

ডিম্বাকৃতির মুখের জন্য সব ধরনের ফ্রেমই মানানসই। তবে বেশি ছোট ফ্রেম বাছাই না করাই ভালো।

ডায়ামন্ড শেপ মুখেও সব ধরনের সানগ্লাসই  ভালো লাগে। তবে ফ্রেমসহ সানগ্লাস বেশি মানায়। খেয়াল রাখতে হবে সানগ্লাসের ফ্রেম যেন গালের হাড় বরাবর হয়।  
ফ্রেম বাছাইয়ের পর এবার সঠিক রং নির্বাচনের পালা। সানগ্লাসের রং চোখের রঙের সাথে মিলিয়ে কিনুন। তবে যোকোনো রঙেই পরতে পারেন।  
দেশের বৃহত্তম বসুন্ধরা শপিং মলের ৫ম তলায় রয়েছে সানগ্লাসের বিশাল কালেকশন। লাল, নীল, সবুজ-বাহারি সব রং ও আকৃতির সানগ্লাস। দোকানিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল আধুনিক এ ফ্যাশনের অনেক কথাই।  

দোকানিরা জানালেন, তাদের দোকানে বিক্রি হওয়া সবই বিদেশি সানগ্লাস। বিশ্বের নামিদামি সব ব্র্যান্ডের সানগ্লাসই মিলবে এখানে। সব মিলিয়ে ৩০টির বেশি ব্র্যান্ডের সানগ্লাস রয়েছে এসব দোকানে। এসব সানগ্লাসের দামেও রয়েছে ভিন্নতা।  

প্রাইম অপটিকসের স্বত্বাধিকারী নাসিম আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, আমাদের এখানে ইউএসএ, ফ্রান্স, ইতালি, কোরিয়া, ইন্ডিয়ান, চায়না, বেলজিয়াম প্রভৃতি দেশের সানগ্লাসই বেশি বিক্রি হয়।  

তিনি বলেন, ৩শ’ টাকা থেকে ৭৮ হাজার টাকা দামের সানগ্লাসই বেশি বিক্রি হয়। রয়েছে দেড় লাখ টাকা দামের কার্টিয়ার ব্র্যান্ডের সানগ্লাসও।  

তিনি জানান, সব বয়েসের মানুষই সানগ্লাস ব্যবহার করলেও মূলত অভিজাত ঘরের উঠতি বয়সের ছেলেমেয়েদেরকেই বেশি ব্যবহার করতে দেখা যায়।  

বসুন্ধরা অপটিকসের মালিক সালমান সাগর বলেন, আমাদের দোকানে বিক্রি হওয়া বিদেশি ব্র্যান্ডের সানগ্লাসের মধ্যে রেবন, আর্মানি, পলিস, কার্টিয়ার, গোচি, ডিওর, বার্চাস, লুইস বাটন, কেরারা, পওরশে, সিকে, টেগুয়ার বেশি বিক্রি হচ্ছে।

চশমার নামই রোদ চশমা। ফ্যাশনের সাথে সাথে এই বিষয়টি সম্পর্কেও সজাগ থাকুন যে তা আপনার চোখকে রোদের প্রকোপ থেকে মুক্ত রাখছে কি না। আমাদের চোখের চারপাশের ত্বক খুবই সংবেদনশীল। তাই সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মি এর ওপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে। যার ফলে চোখের ক্ষতি হয় ও চোখের কোণে বলিরেখা পড়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই ভালো মানের সানগ্লাস ব্যবহার করুন ।
শুধু সানগ্লাস পছন্দ হলেই না কিনে, খেয়াল রাখুন তা যেন আপনার চুল, ত্বক, পোশাক ও ব্যক্তিত্বের সঙ্গে মানিয়ে যায়।

বাংলাদেশ সময়: ১১৩০ ঘণ্টা, এপ্রিল ২২, ২০২৪
এসআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।