ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৯ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

বঙ্গবন্ধু সেতুর পাশে রেলসেতুর নির্মাণকাজ চলছে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১, ২০২৩
বঙ্গবন্ধু সেতুর পাশে রেলসেতুর নির্মাণকাজ চলছে

নীলফামারী: রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, বঙ্গবন্ধু সেতুর পাশে রেলসেতুর নির্মাণ কাজ চলছে। আশা করা হচ্ছে আগামী বছর জুনে এ কাজ শেষ হবে।

তখন চিলাহাটি থেকে ঢাকাগামী দিনের বেলা আরেকটি নীলসাগর ট্রেন চালু করা হবে।  

রোববার (১ জানুয়ারি) বিকেলে নীলফামারীর সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।  

মন্ত্রী বলেন, এর আগে বিএনপি-জামায়াত সরকার রেলকে শেষ করে দিয়েছিল। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর ২০১১ সালে রেলপথ মন্ত্রণালয় নামে একটি পৃথক মন্ত্রণালয় গঠন করে। সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানা আধুনিকায়ন করা হয়েছে। এ কারখানার ভেতরে একটি নতুন কোচ বা ক্যারেজ নির্মাণ করার জন্য সম্ভাব্যতা যাচাই করা হয়েছে। শূন্য পদের জন্য বিশেষ করে খালাশি পদে মৌখিক পরীক্ষা সম্পূর্ণ হয়েছে। নতুন নিয়োগ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে এ নিয়োগ দেওয়া হবে। এছাড়া বর্তমানে রেলের নানা ধরনের উন্নয়নমূলক কাজ চলমান রয়েছে।
 
রেলপথমন্ত্রী আরও বলেন, আমাদের দেশে মিটারগেজ (ছোটলাইন) ও ব্রডগেজ (বড়লাইন) এ দুই ধরনের রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু আছে। এ ব্যবস্থা ভেঙে বহির্বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমাদের দেশেও শুধু ব্রডগেজ যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু করার উদ্যোগ নিয়েছি আমরা। এতে করে রেলসেবা আরও গতিশীল হবে।

এর আগে বিকেলে রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন দেশের সর্ববৃহৎ রেলওয়ে কারখানায় এসে পৌঁছালে কারখানার বিভাগীয় তত্ত্বাবধায়ক (ডিএস) মো. সাদেকুর রহমান তাঁকে স্বাগত জানান। প্রথমে মন্ত্রী সৈয়দপুরের রেলওয়ে অঙ্গনে মুক্তিযুদ্ধে শাহাদাত বরণকারীদের স্মরণে নির্মিত স্মৃতিস্মারক অদম্য স্বাধীনতায় শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদন করেন। এরপর তিনি সৈয়দপুর রেল কারখানর কয়েকটি উপকারখানা (শপ) ঘুরে দেখেন ও শ্রমিক-কর্মচারীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। মন্ত্রী সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানায় সংরক্ষিত ব্রিটিশ রানীর ব্যবহৃত সেলুন কোচ পরিদর্শন করেন।

এসময় মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাব্যবস্থাপক (এডিজি, আরএস) মঞ্জুরুল আলম চৌধুরী, পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক অসিম কুমার তালুকদার, প্রধান যন্ত্র প্রকৌশলী মুহাম্মদ কুদরত-ই খুদা প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ২০২৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০১, ২০২৩
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।