ঢাকা, বুধবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২২ মে ২০২৪, ১৩ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

ফেসবুকের পোস্ট নিয়ে সংঘর্ষ, ইউপি সদস্যসহ হাসপাতালে ৪

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০৫১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২, ২০২৩
ফেসবুকের পোস্ট নিয়ে সংঘর্ষ, ইউপি সদস্যসহ হাসপাতালে ৪

বরিশাল: উজিরপুর উপজেলায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কটূক্তি করে দেওয়া পোস্ট ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সাবেক-বর্তমান ইউপি সদস্যের পরিবারের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

রোববার (১ জানুয়ারি) সন্ধ্যার পর উপজেলার বরাকোঠা ইউনিয়নের ডাবেরকুল বাজারে এ ঘটনায় বর্তমান মেম্বারসহ (ইউপি সদস্য) চারজন আহত হয়েছেন।

তারা বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

উজিরপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল আহসান বলেন, ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য লিটন বেপারী ও সাবেক সদস্য জামাল হোসেনের সঙ্গে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিবাদ রয়েছে। এ ঘটনায় রোববার সন্ধ্যায় দুই পক্ষে সংঘর্ষ হয়। এতে বর্তমান ইউপি সদস্য ও তার ভাই আহত হয়ে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন। অপর পক্ষের দুজন উজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

ওসি বলেন, কোনো পক্ষই থানায় অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বরাকোঠা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট শহীদুল ইসলাম মৃধা বলেন, বর্তমান মেম্বর লিটনের বিরুদ্ধে সাবেক মেম্বরের জামালের ভাই কামাল ফেসবুকে পোস্ট দেয়। বিষয়টি জিজ্ঞেস করায় জামাল, কামাল, শহীদ, আলাল, জাকারিয়া, আরিফ ও সিদ্দিকসহ কয়েকজন হামলা করে। তারা মেম্বর লিটন ও তার ভাইকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে। মেম্বর লিটনের অবস্থা আশংকাজনক। তিনি সুস্থ হওয়ার পর আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ইউপি সদস্য লিটনের ভাই হাসান বেপারী জানান, তিনদিন আগে বরিশাল-২ (উজিরপুর- বানারীপাড়া) আসনের সংসদ সদস্য মো. শাহেআলম নিজ উদ্যোগে বড়াকোঠা ইউনিয়নে গরিবদের ছাগল বিতরণ করেন। এর মধ্যে পাঁচটি ছাগল বিতরণের জন্য তার ভাই লিটনকে দেন। ছাগল পাঁচটি গরীবদের মাঝে বিতরণ করা হয়। কিন্তু পরাজিত প্রার্থী জামাল হোসেনের ভাই মিজানুর রহমান কামাল ও তার সহযোগীরা সরকারের দেওয়া সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে কটূক্তি করে ‘ছাগল নিয়ে সহবাস’ লিখে পোস্ট দেয়।

লিটন গত শুক্রবার জুমার দিনে মসজিদের মুসল্লিদের বিষয়টি জানালে প্রতিপক্ষ মিজানুর রহমান ও তার সহযোগীরা ক্ষিপ্ত হয়। এর জের ধরেই সন্ধ্যায় মিজানুর রহমান কামাল এবং তার ভাই শহিদুল ইসলাম, কামালের ভাতিজা আলাল, আশরাফুল, জাকারিয়াসহ ১৫-২০ জন সন্ত্রাসী পরিকল্পিতভাবে ডাবের কুল বাজারে ভাতিজা রাজ্জাকের দোকানে হামলা চালায়। খবর পেয়ে তিনিসহ ভাই লিটন, নজরুল ও বাচ্চু সেখানে যান। তারা গেলে মিজানুর রহমান কামালসহ অন্যান্যরা ভাই লিটনকে হত্যার চেষ্টায় কুপিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। স্থানীয়রা এসে তাদের উদ্ধার করেন। এর মধ্যে লিটন ও নজরুলের অবস্থার আশঙ্কাজনক।

বাংলাদেশ সময়: ০০৫০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২, ২০২২
এমএস/এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।