ঢাকা, রবিবার, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২১ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

গাইবান্ধার নির্বাচনের পর আরও সতর্ক ইসি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপনডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৩৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২, ২০২৩
গাইবান্ধার নির্বাচনের পর আরও সতর্ক ইসি

চাঁপাইনবাবগঞ্জ: গাইবান্ধা-৫ আসনের উপ-নির্বাচন আমাদের কমিশনকে আরও বেশি সর্তক করেছে। এমনকি নির্বাচনে অনিয়মের সঙ্গে জড়িত অনেক কর্মকর্তাকেই শাস্তির আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে।

সেখানে কিছু ভুল ও নানা অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে আগামী দিনে নির্বাচন ব্যবস্থাপনাকে সাজানো হবে। অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচন আয়োজন করতে নির্বাচন কমিশন সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।  

সোমবার (২ জানুয়ারি) দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন রাজশাহী আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ (গোমস্তাপুর, নাচোল, ভোলাহাট) আসনের উপ-নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. দেলোয়ার হোসেন।

আগামী ১ ফেব্রুয়ারি চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের উপ-নির্বাচন। এতে ভোটকেন্দ্রে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে কিনা, সেটি নিয়ে নিশ্চিত কিছু বলা যাচ্ছে না। এ বিষয়ে এক প্রশ্নের উত্তরে এ নির্বাচন কর্মকর্তা বলেন, এটি নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত। এ বিষয়ে আমাদেরকে এখনও কিছুই জানানো হয়নি। তবে নির্বাচন কমিশন চাইলেই তা করতে পারে। সিসিটিভি ক্যামেরা না থাকলেও সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনের জন্য সব প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।  

দেলোয়ার হোসেন আরও বলেন, সাংবাদিকরা যাতে নির্বিঘ্নে নিজেদের কাজ করতে পারে সে নির্দেশনা দেওয়া হবে নির্বাচনে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের। নির্বাচনে যাতে কেউ কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা করতে না পারে, সে বিষয়গুলো আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে কথা বলে পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হবে। যেকোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সজাগ থাকবে প্রশাসন।  

তিনি আরও বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ১ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য উপ-নির্বাচন আমরা চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি। ভোটাররা যাতে স্বাধীনভাবে ভোট দিতে পারে ও প্রার্থীরা কোনো বাধার সম্মুখীন না হয়- সে বিষয়টিও নিশ্চিত করবে নির্বাচন কমিশন। সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আয়োজনে সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।  

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মোতাওয়াক্কিল রহমানের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মাহবুবুল কবীর প্রমুখ।  

উল্লেখ্য, গত ১০ ডিসেম্বর রাজধানীর গোলাপবাগ মাঠে বিভাগীয় গণ সমাবেশ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন বিএনপির সাত সংসদ সদস্য। গত ১১ ডিসেম্বর সংসদের স্পিকারের কাছে বিএনপি দলীয় ৬ সংসদ সদস্য পদত্যাগপত্র জমা দেন। পরের দিন জাতীয় সংসদ সচিবালয় থেকে তাদের আসন শূন্য ঘোষণা করা হয়। পরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ (নাচোল, গোমস্তাপুর ও ভোলাহাট) আসন শূন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।  ফলে ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা থেকেই নির্বাচন কমিশন দেশের ছয়টি আসনে উপ-নির্বাচন ঘোষণা করে।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ (গোমস্তাপুর, নাচোল, ভোলাহাট) আসনের মোট ভোটার ৪ লাখ পাঁচ হাজার ৪৫০ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ এক হাজার ১৭০ ও নারী ভোটার ২ লাখ চার হাজার ২৮০ জন। ১৮০টি ভোট কেন্দ্রের ১২৩০টি ভোট কক্ষে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০২, ২০২৩
এসএম/এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।