ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ বৈশাখ ১৪৩১, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১৫ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

চাঁপাইনবাবগঞ্জের দুই শূন্য আসনের মনোনয়নপত্র নিলেন ৯ জন

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২, ২০২৩
চাঁপাইনবাবগঞ্জের দুই শূন্য আসনের মনোনয়নপত্র নিলেন ৯ জন

চাঁপাইনবাবগঞ্জ: চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শূন্য হওয়া দুটি আসনের নির্বাচনে লড়তে ৯ ব্যক্তি মনোনয়ন পেয়েছেন।

সোমবার (২ জানুয়ারি) দুপুরে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন নিশ্চিত হওয়ার পর দলটির প্রার্থী আব্দুল ওদুদ তার নেতাকর্মীদের নিয়ে ছাদ খোলা গাড়িতে শোডাউন করেন।

মাঠে অন্যান্য প্রার্থীদের তেমন একটা দেখা না গেলেও জাসদ প্রার্থী মনিরুজ্জামান সন্ধ্যার পরে গণসংযোগ করেন।

অপরদিকে রাজশাহী আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ (গোমস্তাপুর, নাচোল, ভোলাহাট) আসনের উপ-নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. দেলোয়ার হোসেন গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় অংশ নেন। তিনি গায়বান্ধায় অনুষ্ঠিত নির্বাচন থেকে শিক্ষা নিয়ে এখানে সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের ঘোষণা দেন। এ সময় ভোট কেন্দ্রগুলোতে ক্যামেরা স্থাপনের বিষয়টি বিবেচনাধীন বলেও জানিয়েছেন।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী আব্দুল ওদুদ বিশ্বাস, এলডিপি থেকে কামরুজ্জামান খান, স্বতন্ত্র প্রার্থী তাহরীমা বেগম, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন থেকে আমানুল হক ও জাসদ মনোনীত মনিরুজ্জামান মনোনয়ন উত্তোলন করেছেন। এছাড়া  চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. জিয়াউর রহমান, সাবেক জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এবং রাজশাহী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সরকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মো. খুরশি আলম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নবীউল ইসলাম মনোনয়ন পত্র উত্তোলন করেছেন।

১৬ জানুয়ারি প্রতীক বরাদ্দ এবং এর পর প্রচারণা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও ইতোমধ্যে আওয়াম লীগ দলীয় প্রার্থীরা প্রচারণা করছেন। অন্যান্য দলের প্রার্থীদের তেমন একটা মাঠে উপস্থিতি লক্ষ্য না করা গেলেও জাসদ প্রার্থী স্বল্প পরিসরে প্রচারণা চালাচ্ছেন। এদিকে আলোচনায় থাকা জাতীয় পার্টির কোনো প্রার্থী এখনও মনোনয়ন উত্তোলন বা এলাকায় গণসংযোগ শুরু করেননি।


সোমবার বিকেলে শহরের ওয়ালটোন মোড়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন সাবেক এমপি আব্দুল ওদুদ। তিনি নির্বাচিত হলে তার অসম্পূর্ণ কাজ ও জেলার বিভিন্ন সমস্যাগুলোর মধ্যে অন্যতম অর্থনৈতিক জোন স্থাপন, পর্যটন মোটেলের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন, বন্ধ ট্রেনগুলো পুনরায় চালু করা, রাবার ড্যামের কাজ দ্রুত শেষ করা এবং  স্থলবন্দরের বিভিন্ন সমস্যা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সমাধানের উদ্যোগের কথা জানান। দলীয় কোন্দলের বিষয়ে তিনি বলেন, বড় দলে প্রতিযোগীতা থাকবেই। সব বাধা পেরিয়ে দলের সব নেতাকর্মীদের নিয়ে নৌকার বিজয় হবে বলে আশা করেন তিনি।

অন্যদিকে জেলা জাসদ সাধারণ সম্পাদক ও নাগরিক কমিটির সদস্য সচিব মুনিরুজ্জামান ইতোমধ্যে মাঠে নেমেছেন। পৌরবাসীর বিভিন্ন সমস্যাগুলো নিয়ে আন্দোলন ও সোচ্চার থাকার পাশাপাশি এলাকায় গণসংযোগ করছেন তিনি। সোমবার সন্ধ্যার পর শহরের বটতলা হাট এলাকায় তিনি ভোট চেয়ে গণসংযোগ করেন। তবে এ আসনে বাকি তিনজনের কোনো প্রচারণা লক্ষ্য করা যায়নি।

এছাড়া জেলার অপর শূন্য আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. জিয়াউর রহমানসহ আরও চারজন মনোনয়ন পেয়েছেন। দলীয় মনোনয়ন নিশ্চিত হওয়ার পর তিনি ঢাকায় অবস্থান করায় তার বা অন্য কোনো প্রার্থীর এ আসনে এখনও  প্রচারণা দেখা যায়নি।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মোতাওয়াক্কিল রহমান জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জে শূন্য হওয়া দুইটি আসনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময় ৫ জানুয়ারি বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এছাড়া মনোনয়নপত্র বাছাই ৮ জানুয়ারি, প্রত্যাহার ১৫ জানুয়ারি এবং প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে ১৬ জানুয়ারি।

উল্লেখ্য, রোববার (০১ জানুয়ারি) রাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভা শেষে আব্দুল ওদুদকে নৌকার প্রার্থী ঘোষণা করে আওয়ামী লীগ। আগামী ০১ ফেব্রুয়ারি চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮০৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০২, ২০২৩
এফআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।