ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ বৈশাখ ১৪৩১, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১৫ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

মহালছড়িতে ৩৮ ফুট উঁচু বুদ্ধমূর্তি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৫৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩, ২০২৩
মহালছড়িতে ৩৮ ফুট উঁচু বুদ্ধমূর্তি

খাগড়াছড়ি: খাগড়াছড়ির মহালছড়ি উপজেলার অরণ্য কুটির বৌদ্ধ বিহারে স্থাপন করা হয়েছে ৩৮ ফুট উচ্চতার বুদ্ধমূর্তি।  

উপজেলার দুর্গম মনাটেক অরণ্য কুটিরে প্রায় ৮০ লাখ টাকা ব্যয়ে মূর্তিটি নির্মাণ করা হয়।

পরে স্থানীয়রা তা উৎসর্গ করেন।  

আয়োজন করা হয় নানান ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতার। ফিতা কেটে নবনির্মিত ৩৮ ফুট বুদ্ধমূর্তি উৎসর্গের উদ্বোধন করেন ধর্মীয় গুরু সুমন মহাস্থবির। অনুষ্ঠানে পুণ্য লাভের আশায় শামিল হন হাজারো বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী নারী-পুরুষ।

বুদ্ধমূর্তিটি তৈরির কাজে প্রথমে এগিয়ে আসেন স্থানীয় কদম মোহন চাকমা নামে এক ব্যক্তি। পরে এতে এলাকাবাসী এগিয়ে আসে।  

কদম মোহন চাকমা বলেন, শুরুতে একক উদ্যোগে শুরু করলেও পরে এলাকাবাসীসহ একত্রিত হয়ে মূর্তিটির নির্মাণ কাজ শেষ করে। এটি নির্মাণে প্রায় দুই বছর সময় লেগেছে।

মনাটেক অরণ্য কুটিরের প্রধানক উপাসক সেজান চাকমা বলেন, সবার সর্বাত্মক সহযোগিতায় আমরা মূর্তিটি নির্মাণ করতে পেরেছি। এখন বিভিন্ন জায়গা থেকে পুণ্যার্থীরা মূর্তিটি দেখতে বিহারে আসছেন।
 
মনাটেক অরণ্য কুটিরের ভদন্ত পঞঞা সিদ্ধি থের বলেন, বুদ্ধমূর্তি তৈরি করা এবং উৎসর্গ করার মধ্যে ধর্মীয় একটা গুরুত্ব আছে। সেটি হলো, যদি এই মূর্তি বানানোর পর দান করি এবং পূজা করি, তাহলে বুদ্ধের মতো জ্ঞানী হওয়া যায়।  

বুদ্ধের পূজা, শিক্ষা অর্জন, অনুশীলন করলে জগতের সমস্ত দুঃখ থেকে মুক্তি লাভ করা সম্ভব বলেও জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩, ২০২২
এডি/আরএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad