ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৮ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

ফরিদপুরে ছেলের বিরুদ্ধে বাবার মানববন্ধন!

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮১১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩, ২০২৩
ফরিদপুরে ছেলের বিরুদ্ধে বাবার মানববন্ধন! ছবি: বাংলানিউজ

ফরিদপুর: ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলায় চলাচলের পথে বাঁধা সৃষ্টি, পথ বন্ধ ও মিথ্যা মামলা করার প্রতিবাদে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মনববন্ধন করেছেন তার ভুক্তভোগী বাবা ও এলাকাবাসী।

মঙ্গলবার (০৩ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার বালিয়াডাঙ্গী গ্রামে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে এলাকার নারীপুরুষেরা অংশ নেন।

মানববন্ধন চলাকালে ভুক্তভোগী বৃদ্ধ বাবা মো. মোসলেম খাঁন (৫২) জানান, আমার বড় ছেলে মো. মোস্তফা কামাল মুক্তাদির আমার মেজো ছেলে মো. আনোয়ার হোসেন মুসার ওপর বলপূর্বক জমি সংক্রান্ত ঝামেলা করছে। আমি আমার মেজো ছেলেকে চলাচলের জন্য ১১ নম্বর চরভদ্রাসন মৌজার দিয়ারা ১০১৫ নম্বর খতিয়ানের ৭৫৫৮ নম্বর দাগের ৬ শতক সম্পত্তি হেবা হিসেবে দান করি। দুঃখের বিষয়, এ নিয়ে আমার বড় ছেলে দুইবার আমাকে মারধর করে। আমি জীবিত থাকা সত্ত্বেও ছয় শতক জমি চলাচলের পথ বারবার বন্ধ করে দিচ্ছে।

ভুক্তভোগী বাবা আরও বলেন, এ ব্যাপারে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি চেষ্টা করেও তাকে কখনও সালিশ মীমাংসায় বসাতে পারেন নি। শুধু তাই নয় চলাচলের পথে বাঁধা সৃষ্টি করার বিষয়ে স্থানীয়রা জানতে গেলে সে আমার মেজো ছেলে, তার বউ, ছোট ছেলে ও স্থানীয় আরও অনেকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে।

মানব বন্ধনে এলাকাবাসী বলেন, মুক্তাদিরের বাবা তার মেজো ছেলে ও এলাকাবাসীর মসজিদে চলাচলের জন্য রাস্তাটি দেন। কিন্তু তিনি চলাচলে বাঁধা সৃষ্টি করে পথ বন্ধ করে দেন। এ ব্যাপারে কেউ কিছু বলতে গেলে তিনি তাকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করেন।

মানববন্ধনে ভুক্তভোগী বাবা মো. মোসলেম খান ছাড়া আরও বক্তব্য দেন তার স্ত্রী খালেদা বেগম, স্থানীয় বাসিন্দা মো. ফজল মোল্যা ও মো. আলম।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মোস্তফা কামাল মুক্তাদির জানান, রাস্তার জায়গাটি আমি আমার এক কাকার কাছ থেকে কিনেছি। কিন্তু আমার মেজো ভাই আমার জায়গায় মাটি ও গাছপালা কাটতে আসে। বাঁধা দিলে সে আমাকে মেরে হাত ভেঙে দেয়।

এ সময় তিনি প্রশ্ন করে বলেন, আমি আমার কেনা সম্পত্তিতে চলাচলের রাস্তা দিবো কেন?

বাংলাদেশ সময়: ১৮১০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৩, ২০২২
এসআইএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।