ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

‘ভয়েস অব গ্লোবাল সাউথ সামিট’ আয়োজন করবে ভারত

ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৪৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৬, ২০২৩
‘ভয়েস অব গ্লোবাল সাউথ সামিট’ আয়োজন করবে ভারত

ঢাকা: ভারতের উদ্যোগ আগামী ১২-১৩ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে দুই দিনের ‘ভয়েস অফ গ্লোবাল সাউথ’ শীর্ষক একটি বিশেষ ভার্চ্যুয়াল সম্মেলন। এর মাধ্যমে ‘ইউনিটি অব ভয়েস, ইউনিটি অব পারপাস’ থিমের অধীনে গ্লোবাল সাউথের দেশগুলিকে একত্রিত করার পরিকল্পনা রয়েছে।

১২০ টিরও বেশি দেশকে এই শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নেওয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছে উদ্যোক্তারা। শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে।

ভয়েস অব গ্লোবাল সাউথ সামিট ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ, সবকা বিশ্বাস এবং সবকা প্রয়াসে’ এর দৃষ্টিভঙ্গি ও ভারতের বাসুধৈব কুটুম্বকমের দর্শন দ্বারা অনুপ্রাণিত। ভয়েস অব গ্লোবাল সাউথ সামিটের আলোচনায় অংশীদার দেশগুলোর মূল্যবান মতামত বিশ্বব্যাপী যেন কাজে লাগে, সেটা নিশ্চিত করতে ভারত কাজ করবে। এছাড়া জি-২০তে ভারতের চলমান প্রেসিডেন্সি এসব দেশগুলোর জন্য একটি বিশেষ ও শক্তিশালী সুযোগ তৈরি হবে। যারা জি-২০ প্রক্রিয়ার অংশ নয়, তারাও জি-২০ থেকে তাদের প্রত্যাশাগুলো তুলে ধরার সুযোগ নিতে পারবে। এটি ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বিবৃতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ যে, ভারতের জি-২০ প্রেসিডেন্সি শুধুমাত্র জি-২০ অংশীদারদের সঙ্গে নয়, গ্লোবাল সাউথের সহযাত্রীদের সঙ্গেও আলোচনা করে গঠন করা হবে, যাদের কণ্ঠস্বর প্রায়শই শোনা যায় না।

সম্মেলনে ১০টি অধিবেশনের পরিকল্পনা করা হয়েছে। ১২ জানুয়ারি চারটি অধিবেশন এবং ১৩ জানুয়ারি ছয়টি অধিবেশন অনুষ্ঠিত হবে। আশা করা হচ্ছে প্রতিটি অধিবেশনে ১০-১২টি দেশের নেতা-মন্ত্রীরা অংশ নেবেন।

উদ্বোধনী ও সমাপনী অধিবেশনে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধান/সরকার পর্যায়ে এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী অংশ নেবেন। উদ্বোধনী অধিবেশনের থিম হল ‘ভয়েস অব গ্লোবাল সাউথ- হিউম্যান সেন্ট্রিক ডেভেলপমেন্ট’ এবং সমাপনী অধিবেশনের বিষয় হল ‘ইউনিটি অব ভয়েস - ইউনিটি অব পারপোস’।


এছাড়াও থিমসহ ৮টি মন্ত্রী পর্যায়ের অধিবেশন হবে। এগুলো হলো- অর্থমন্ত্রীদের অধিবেশনে থাকবে ‘জনগণকেন্দ্রিক উন্নয়নে অর্থায়ন’ আলোচনা। পরিবেশ মন্ত্রীদের অধিবেশনে থাকবে ‘পরিবেশ বান্ধব লাইফস্টাইলের সঙ্গে ভারসাম্য বজায় রাখা। পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের অধিবেশনে থাকবে ‘গ্লোবাল সাউথের অগ্রাধিকার- একটি উপযোগী পরিবেশ নিশ্চিত করা’। জ্বালানি মন্ত্রীদের অধিবেশনে থাকবে ‘শক্তি নিরাপত্তা ও উন্নয়ন- সমৃদ্ধির রোডম্যাপ’ আলোচনা। স্বাস্থ্যমন্ত্রীদের অধিবেশনে আলোচনা হবে ‘স্থিতিস্থাপক স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা গড়ে তুলতে সহযোগিতা’।

শিক্ষামন্ত্রীদের অধিবেশনে আলোচনা হবে ‘মানব সম্পদ উন্নয়ন এবং সক্ষমতা বৃদ্ধি’। বাণিজ্যমন্ত্রীদের অধিবেশনে আলোচনা হবে ‘গ্লোবাল সাউথ-বাণিজ্য, প্রযুক্তি, পর্যটন এবং সম্পদে উন্নয়নশীল সমন্বয়’ এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের অধিবেশনে ‘জি-২০: ভারতের প্রেসিডেন্সির জন্য প্রস্তাবনা’ নিয়ে আলোচনা হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৬, ২০২৩
টিআর/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।