ঢাকা, শনিবার, ৩০ চৈত্র ১৪৩০, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৩ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

চোরাই মালামাল বেচতে গিয়ে ধরা 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৭, ২০২৩
চোরাই মালামাল বেচতে গিয়ে ধরা 

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার পাগলা এলাকায় একটি ফার্নিচারের দোকান থেকে খাটসহ ৪ লাখ টাকার আসবাবপত্র চুরি করে পালিয়ে যায় চার চোর।  

এরপর সেই খাটের হাসিয়া কিনতে এবং খাট বিক্রি করতে গিয়ে তাদের মধ্যে দুজন গ্রেফতার হয়েছেন।

শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) বিকেলে দুই চোরকে সদর থানার ডনচেম্বার এলাকা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।  এরপর তাদের তথ্যানুসারে চুরি করা চারটি খাট, দুটি চেয়ার, একটি টেবিল ও একটি কর্নার সুকেস উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতার দুই চোর হলেন- ফতুল্লা মডেল থানার কাঠেরপুল এলাকার মৃত তোতা মিয়ার ছেলে ইমন (২৬) ও একই এলাকার অলি আহম্মেদের ছেলে মো. সোহেল (২৬)।

ফতুল্লা মডেল থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) নজরুল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, চুরির ঘটনার পর রিগ্যাল ফার্নিচারের দোকান মালিক ফয়েজুর রহমান বাদী হয়ে গত ১ জানুয়ারি ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। শুক্রবার বিকেলে সংবাদ পাই, শহরের ডনচেম্বার এলাকার একটি দোকানে খাটের হাসিয়া বিক্রি করার জন্য দুই ব্যক্তি এসেছেন। খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে দুই চোর ইমন ও সোহেলকে আটক করা হয়। পরে ইমনের স্বীকারোক্তি মোতাবেক তার নিজ এবং তার চাচার ঘর থেকে চারটি খাট, দুটি চেয়ার, একটি টেবিল ও একটি সুকেশ উদ্ধার করা হয়। চুরি যাওয়া বাকি আসবাবপত্র উদ্ধারসহ জড়িত অপর দুই আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা করা হচ্ছে। শনিবার (৭ জানুয়ারি) গ্রেফতারদের পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে নারায়ণগঞ্জ আদালতে পাঠানো হয়েছে।

জানা যায়, গত ১ জানুয়ারি ভোরে পাগলা বাজারের রিগ্যাল ফার্নিচারের দোকানের তালা ভেঙে দশটি খাট, আটটি চেয়ার, ৪ টি টেবিলসহ চার লাখ টাকার আসবাবপত্র চুরি করে একটি পিকআপভ্যানে করে নিয়ে যায়। এ সময় পাগলা বাজারের নিরাপত্তারক্ষী দেখতে পেয়ে জিজ্ঞেস করলে তাকে জানানো হয় মালামাল ডেলিভারি করার জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। সকাল দশটার দিকে কর্মচারী দোকানে এসে বিষয়টি দেখতে পেয়ে মালিককে অবহিত করেন। ওইদিনই অজ্ঞাতনামা চার চোরকে আসামি করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন দোকান মালিক ফয়েজুর।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৭, ২০২৩
এমআরপি/এসএএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad