ঢাকা, শনিবার, ৩০ চৈত্র ১৪৩০, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৩ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

মানবিক থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে চাই: শিক্ষামন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৮, ২০২৩
মানবিক থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে চাই: শিক্ষামন্ত্রী

কক্সবাজার: শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, আমরা মানবিক বাংলাদেশে আছি, সে মানবিকতা ও সৃজনশীলতাকে বজায় রেখে উন্নত সমৃদ্ধির স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে চাই। বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এটা সম্ভব।

রোববার (৮ জানুয়ারি) দুপুরে কক্সবাজারে অনুষ্ঠিত ‘ন্যানো-বায়ো অ্যান্ড অ্যাডভান্সড ম্যাটেরিয়ালস ইঞ্জিনিয়ারিং- ২০২৩’ শীর্ষক দুই দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে যে অগ্রগতি হয়েছে সেটা শুধুমাত্র শিক্ষার ক্ষেত্রে উপলব্ধি করছি তা না, এটার বাস্তব প্রয়োগে ডিজিটাল বাংলাদেশ হয়েছি, এখন স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে চলছে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের যত টেকনোলজির কথা বলা হচ্ছে, তার মধ্যে ন্যানো-বায়ো টেকনোলজি একটি গুরুত্বপূর্ণ জরুরি বিষয়।

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কেমিকৌশল (সিএইচই) বিভাগের আয়োজনে শনিবার (৭ জানুয়ারি) এ আন্তর্জাতিক সম্মেলন  শুরু হয়।

যুক্তরাষ্ট্র, স্পেন, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, মালয়েশিয়া, ভারত, সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ দেশ-বিদেশের ২৫০ জন শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও গবেষকের অংশগ্রহণে সম্মেলনটি অত্যন্ত সফল উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেন, গবেষণা করতে হবে, উদ্ভাবনও করতে হবে। সেই উদ্ভাবনকে বিশ্ববিদ্যালয়ে কীভাবে বাস্তবে প্রয়োগ করা যায় এবং বাণিজ্যিকীকরণে যাওয়া এ পুরো পথটাতে কিন্তু
আমাদের যেতে হবে। উদ্ভাবন করে শুধু বিশ্ববিদ্যালয়ে রেখে দিলাম তা নয়; এটা মানব সমাজের জন্য যে ব্যবহার সেটাও নিশ্চিত করতে হবে।

অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বৈশ্বিক সংকটের কারণে অর্থনৈতিক মন্দা চলছে। সে কারণে কাগজের বিরাট আকারে সংকট ছিল। গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে বিদ্যুতের সংকট তৈরি হয়েছিল। যার কারণে ছাপাখানাগুলোকেও অনেক ঝামেলার মধ্যে পড়তে হয়। তা সত্ত্বেও বছরের প্রথম দিন শতকরা ৮০ শতাংশ বই শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দিতে পেরেছি। বাকি বইগুলো আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে শিক্ষার্থীদের হাতে পৌঁছে যাবে।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি যবিপ্রবির উপাচার্য ও একুশে পদকপ্রাপ্ত বিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন বলেছেন, স্মার্ট বাংলাদেশের জন্য স্মার্ট মানুষ ও স্মার্ট টেকনোলজি প্রয়োজন। এজন্য আমাদের নতুন নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবন করতে হবে। তাহলে আমাদের উন্নয়ন আরও টেকসই হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে যবিপ্রবির কেমিকৌশল বিভাগের চেয়ারম্যান ড. জাভেদ হোসেন খান বলেছেন, সম্মেলনে ‘অ্যাডভান্স ম্যাটেরিয়ালস ফর এনার্জি, ফুড সেফটি অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট, ন্যানো ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড ফটোনিকস, ন্যানো-টেকনোলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজি, এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ম্যাটেরিয়ালস সায়েন্স, বায়ো ম্যাটেরিয়ালস অ্যান্ড মেডিকেল ডিভাইসসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রায় ১৫২টি প্রবন্ধ ও পোস্টার উপস্থাপন করবেন।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন যুক্তরাষ্ট্রের কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. ইয়ং ল্যাক জুস প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৮, ২০২৩
এসবি/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad