ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

ফেনীতে দুষ্কৃতিদের হামলায় আহত রিকশাচালকের মৃত্যু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯২০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৮, ২০২৩
ফেনীতে দুষ্কৃতিদের হামলায় আহত রিকশাচালকের মৃত্যু

ফেনী: ফেনীতে দুষ্কৃতিদের হামলায় আহত রিকশাচালক কালা মিয়ার (৫০) মৃত্যু হয়েছে। রোববার (০৮ জানুয়ারি) সকালে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন তার মৃত্যু হয়।

 

এর আগে শুক্রবার রাতে ফেনী সদর উপজেলার ফরহাদনগর ইউনিয়নের খাইয়ারা-কসকা সড়কে তাকে পিটিয়ে অজ্ঞান করে সঙ্গে থাকা নগদ ৩০ হাজার টাকা ও মোবাইল সেট এবং বেটারিচালিত রিকশাটি নিয়ে যায় দুষ্কৃতিরা।

নিহত রিকশাচালক কালা মিয়া ফরহাদনগর ইউনিয়নের সুবলপুর গ্রামের আবদুল গনি ভূঞা বাড়ির নুর আহাম্মদের ছেলে। তিনি দীর্ঘদিন যাবত ওই এলাকায় রিক্সা চালিয়ে সংসার চালাতেন।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, কালা মিয়ার ছেলে প্রবাস থেকে পরিবারের জন্য বিকাশের মাধ্যমে ৩০ হাজার টাকা পাঠান। শুক্রবার রাতে স্থানীয় খাইয়ারা বাজারের রকমারী স্টোর থেকে তিনি ওই টাকা তুলে নিজ রিকশা চালিয়ে বাড়ির দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় অজ্ঞাতপরিচয় দুই ব্যক্তি কালা মিয়ার রিকশায় উঠে কসকা বাজারে ভাড়ায় যেতে বলেন। কালা মিয়া তাদের কথায় রাজি হয়ে বোগদাদিয়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ৩শ গজ দক্ষিণে পৌঁছালে যাত্রীর বেশে থাকা ব্যক্তিরা পেছন থেকে মাথায় লোহার বস্তু দিয়ে আঘাত করে।  

এক পর্যায়ে কালা মিয়া অজ্ঞান হয়ে পড়লে দুর্বৃত্তরা নগদ ৩০ হাজার টাকা, মোবাইল সেট ও রিকশাটি নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা কালা মিয়াকে উদ্ধার করে ফেনী জেনারেল হাসপাতাল ও পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করায়।  

স্থানীয় ফরহাদনগর ইউপির ৯ নং ওয়ার্ডের সদস্য নুরুল আমিন জানান, দীর্ঘদিন পর্যন্ত কালা মিয়া রিকশা চালিয়ে পরিবার চালিয়ে আসছেন। এলাকার মানুষের সঙ্গে তার কোনো বিরোধ ছিল না। শুক্রবার রাতে হামলায় আহত হওয়ার পর রোববার তার মৃত্যুর ঘটনা জানাজানি হলে এলাকার জনসাধারণের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। আইনগত প্রক্রীয়া শেষ করে রাতেই তার দাপন করা হবে।

এ বিষয়ে ফেনী সদর উপজেলার বোগদাদিয়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো রাসেল মিয়া জানান, রিকশাচালক কালা মিয়ার মৃত্যুর ঘটনায় মামলা হয়েছে। পুলিশ প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনে কাজ করছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯২০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৮, ২০২৩ 
এসএইচডি/এসএ
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।