ঢাকা, মঙ্গলবার, ৯ বৈশাখ ১৪৩১, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১৩ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

লামার সরই ম্রো পাড়ায় হামলা-লুটপাটের ঘটনায় মামলা 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৮, ২০২৩
লামার সরই ম্রো পাড়ায় হামলা-লুটপাটের ঘটনায় মামলা 

বান্দরবান: বান্দরবানের লামা উপজেলার সরইয়ে রেংয়েন ম্রো পাড়ায় হামলা, বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনায় মামলা হয়েছে।  

শনিবার (৭ জানুয়ারি) রাতে বান্দরবানের লামা থানায় রেংয়েন ম্রো পাড়ার কার্বারি (পাড়া প্রধান) রেংইয়েন ম্রো বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

রোববার (৮ জানুয়ারি) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহীদুল ইসলাম চৌধুরী।

তিনি জানান, মামলায় লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রিজ নামে এক কোম্পানির চেয়ারম্যান সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন ও প্রকল্প পরিচালক কামাল উদ্দিনসহ হামলার নির্দেশদাতা চারজন ও হামলায় নেতৃত্ব দেওয়া ছয়জনের নাম উল্লেখ করে এবং ১৫০ থেকে ১৭০জন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন-কোম্পানিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক জহিরুল ইসলাম ও ব্যবস্থাপক আরিফুল ইসলাম, কেয়াজুপাড়া বাজার এলাকার বাসিন্দা মো. নুরু, লম্বা খোলা ফজর আলী পাড়ার দেলোয়ার হোসেন, কেয়াজু মাঝের পাড়ার দুর্যোধন ত্রিপুরা, হাজিরাম ত্রিপুরা, কেয়াজু পাড়ার এলাকার আবদুল মালেক ও মোহাম্মদ মহসিন রেজা।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ১ জানুয়ারি গভীর রাতে ১৫০ থেকে ১৭০ জন লাঠিসোটা নিয়ে ছয়টি ছোট ট্রাকে করে রেংয়েন ম্রো পাড়ায় গিয়ে হামলা চালান। হামলাকারীরা ট্রাকে করে ধারালো অস্ত্র ও কেরোসিন নিয়ে আসে। হামলা থেকে পাড়াবাসীরা রক্ষা পেতে বনে-জঙ্গলে পালিয়ে নিজেদের আত্মরক্ষা করেন। হামলাকারীরা কয়েকটি বাড়িতে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়। এছাড়া তিনটি বাড়িতে থাকা মূল্যবান কাগজপত্র (জাতীয় পরিচয়পত্র, জন্মসনদ) ১৮ হাজার ২০০ টাকাও বিভিন্ন গৃহ সামগ্রী পাওয়া যায়নি। আরও পাঁচটি বাড়িতে ভাঙচুর করা হয়েছে, ওই পাঁচটি বাড়ির সৌর বিদ্যুতের প্যানেল, আসবাবপত্র, কাপড়, কৃষিজ সরঞ্জামসহ প্রায় আট লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

রেংয়েন ম্রো পাড়ার কার্বারি (পাড়া প্রধান) রেংইয়েন ম্রো জানান, ম্রো পাড়ায় হামলা, বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনার পাড়াবাসী খুবই আতঙ্কিত। এজন্য আমরা লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রিজের ১০ জনের নামে এবং অজ্ঞাতনামা আরও ১৫০ থেকে ১৭০ জন ব্যক্তিকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছি। আশাকরি সুষ্ঠু তদন্ত শেষে আমরা এর বিচার পাব।

বান্দরবানের লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম চৌধুরী জানান, রেংয়েন ম্রো পাড়ার কার্বারি (পাড়া প্রধান) রেংইয়েন ম্রো বাদী হয়ে লামা থানায় মামলাটি দায়ের করেছেন, এ বিষয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ২০০৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৮, ২০২৩
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।