ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৮ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

শহরের পাঁচ ভাগের এক ভাগ মানুষ পাবে বিশুদ্ধ পানি: মন্ত্রী

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৪৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৯, ২০২৩
শহরের পাঁচ ভাগের এক ভাগ মানুষ পাবে বিশুদ্ধ পানি: মন্ত্রী

ঢাকা: দেশের শহরাঞ্চলে বসবাসকারী ২১ শতাংশ মানুষের খাবার পানি নিয়ে দুশ্চিন্তা দূর করতে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

সোমবার (৯ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদে এম. আব্দুল লতিফের এক প্রশ্নের লিখিত উত্তরে তিনি এ কথা বলেন।

  এ স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, দেশের শহরগুলোতে বসবাসকারী পরিবারের ২১ শতাংশ মানুষের খাবার পানি নিয়ে দুশ্চিন্তা লাঘবে স্থানীয় সরকার বিভাগের আওতাধীন জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর বিভিন্ন কার্যকর পদক্ষেপ নিয়েছে। শহরাঞ্চলে সুপেয় পানির জন্য দেশের সব পৌরসভায় পয়েন্ট সোর্সের মাধ্যমে বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ ব্যবস্থা চালু আছে এবং অধিকাংশ পৌরসভায় পাইপ লাইনের মাধ্যমে বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করা হচ্ছে। পৌর এলাকায় পানি সরবরাহ কভারেজ প্রায় ৯৯.৬ শতাংশ। যার মধ্যে পয়েন্ট ওয়াটার সাপ্লাই ও পাইপড ওয়াটার সাপ্লাইয়ের মাধ্যমে যথাক্রমে ৬১.৬ শতাংশ ও ৩৮ শতাংশ জনগণ পানি সরবরাহ সুবিধা পাচ্ছে (বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো ও ইউনিসেফের যৌথ জরিপ প্রতিবেদন Multiple Indicator Cluster Survey (MICS) 2019 অনুয়ায়ী)। পর্যায়ক্রমে সব পৌর এলাকায় পাইপলাইনের মাধ্যমে বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ ব্যবস্থা চালুর কার্যক্রম অব্যাহত আছে।

তিনি বলেন, বর্তমানে প্রায় ১৫৯টি পৌরসভায় পাইপলাইনের মাধ্যমে পানি সরবরাহ ব্যবস্থা চালু আছে। স্থানীয় সরকার বিভাগের আওতাধীন জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের ৯৬টি পৌরসভায় বিভিন্ন প্রকল্পের আওতায় পাইপলাইনের মাধ্যমে পানি সরবরাহ কার্যক্রম বাস্তবায়নাধীন রয়েছে। পৌর এলাকায় উল্লেখযোগ্য কার্যক্রমগুলো হচ্ছে-

পৌর এলাকায় ১২টি প্রকল্পের মাধ্যমে মোট ৬৮৮টি উৎপাদক নলকূপ, ৫,৪৭১.৬৫ কি. মি. পাইপ লাইন, ৮৭টি পানি শোধনাগার, ৬৬টি উচ্চ জলাধার, ১২,৫৮৯টি গৃহ সংযোগ এবং ১৫,৩৩২টি নলকূপ স্থাপন কাজ বাস্তবায়িত হচ্ছে।

ভবিষ্যৎপরিকল্পনা সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন,  ১৮টি জেলা শহরে ‘ভূ-পৃষ্ঠস্থ পানি সরবরাহ প্রকল্প’ শীর্ষক একটি প্রকল্প প্রস্তাবিত রয়েছে। ওই প্রকল্পের আওতায় ৩৬টি ভূ-পৃষ্ঠস্থ পানি শোধনাগার, ৩৬টি উচ্চ জলাধার, ১৫৩৪ কি.মি. পাইপ লাইন এবং ১,৪৪,০০০টি গৃহ সংযোগ স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে। সারা দেশের ৩১টি পৌরসভায় ‘নিরাপদ পানি সরবরাহ ও এনভায়রনমেন্টাল স্যানিটেশন প্রকল্প’ শীর্ষক একটি প্রকল্প প্রস্তাবিত রয়েছে। প্রকল্পের আওতায় ৯৭টি উৎপাদক নলকূপ, ১০টি আয়রন রিমুভাল প্ল্যান্ট, ৯৩১.০৮ কি. মি. পাইপ লাইন, ১,০২,০৬১টি গৃহ সংযোগ, ৩১১টি পাবলিক টয়লেট, ৭৬৩টি কমিউনিটি ল্যাট্রিন, ৩১টি পৌরসভায় কম্পোজিট বর্জ্য ব্যবস্থাপনা এবং ৪০৩.৭৩ কি. মি. ড্রেন স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে।

বাংলাদেশ সময় ১৬৪৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৯, ২০২৩
এসকে/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।