ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ বৈশাখ ১৪৩১, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১৫ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

নড়াইলে বসতবাড়ি ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ, খোলা আকাশের নিচে ২ পরিবার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৩৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৯, ২০২৩
নড়াইলে বসতবাড়ি ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ, খোলা আকাশের নিচে ২ পরিবার

নড়াইল: নড়াইল সদর উপজেলার শেখহাটি ইউনিয়নের দেবভোগ গ্রামের সালাম ও জামাল শেখের বসতবাড়ি ভাঙচুর এবং অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে।

ফলে শিশু ও নারী সদস্যদের নিয়ে প্রচণ্ড শীতের মধ্যে খোলা আকাশের নিচে রয়েছে ওই পরিবার দুটির সদস্যরা।

রোববার (৮ জানুয়ারি) গভীর রাতে দেবভোগ গ্রামের সুফল বিশ্বাসের নেতৃত্বে এ ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীরা।

ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার সূত্রে জানা যায়, প্রায় তিন বছর আগে দেবভোগ গ্রামের রাধাবল্লভ বিশ্বাসসহ তার তিন ভাইয়ের কাছ থেকে এক একর ২৬ শতক জমি কেনেন তারা। (৮৭ নম্বর দেবভোগ মৌজার আর.এস খতিয়ান নম্বর-১২৪৩, আরএস ২৮৭৪ ও ২৮৭৫ দাগের ৯৬ শতক জমি এবং আর.এস খতিয়ান ৮১১, দাগ নম্বর-২৮৯০ এর ২৪ শতক এবং অন্য আরেকটি দাগে ৬ শতক)। নিয়মানুযায়ী জমি রেজিস্ট্রেশন ও নামপত্তন সম্পন্ন করেছেন তারা। গত তিন মাস ধরে ওই জমিতে বাড়িঘর নির্মাণ করে বসবাস করছেন ওই দুই ভাইয়ের পরিবারের সদস্যরা।

ক্ষতিগ্রস্ত দুই ভাই সালাম ও জামাল শেখ বাংলানিউজকে জানান, হঠাৎ করে রোববার রাতে রাধাবল্লভের ভাতিজা সুফল বিশ্বাসের নেতৃত্বে ১০-১৫ জন লোক তাদের একটি বসতঘর, রান্নাঘর ও বাথরুম ভাঙচুর করে আগুন লাগিয়ে দেন।

ফলে কনকনে শীতের মধ্যে সালাম ও জামাল শেখের পরিবারের ১৫ জন সদস্য খোলা আকাশের নীচে রাত কাটানোসহ মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

ভুক্তভোগীরা এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চেয়ে সোমবার (৯ জানুয়ারি) সকালে নড়াইল সদর থানায় ১০ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

তবে এ ঘটনার প্রায় ছয় মাস আগে সালাম ও জামালের পরিবারের সদস্যরা জমিতে গেলে জমি দাতারা হামলা চালিয়ে চার নারীকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনা ঘটেছিল। ওই হামলায় আহত হন মোমেনা বেগমসহ (৪৫) তার তিন পুত্রবধূ মমতাজ বেগম (২৫), ইতি বেগম (১৮) ও আছমা বেগম (২২)। পরে স্থানীয়ভাবে একটা মীমাংসা হলে তারা তিন মাস আগে বাড়ি নির্মাণ করে বসবাস শুরু করেন।

এসব অভিযোগের ব্যাপারে সুফল বিশ্বাস মুঠোফোনে বাংলানিউজকে বলেন, সালাম ও জামাল শেখের বাড়িতে আমার নেতৃত্বে কোনো হামলার ঘটনা ঘটেনি। কে বা কারা হামলা করেছে জানি না। আমি যশোরে আছি। এ জমি নিয়ে বিরোধ থাকায় আদালতে মামলা চলছে।

তবে ক্ষতিগ্রস্ত সালাম শেখের ছেলে ইমন বাংলানিউজকে বলেন, সোমবার দুপুর ১২টার দিকে ঘটনাস্থলে সাংবাদিকেরা যাওয়ার প্রায় ২০ মিনিট আগেও সুফল বিশ্বাস লাঠি উঁচিয়ে ভুক্তভোগীদের ভয়ভীতি দেখিয়েছেন। বাড়িঘর ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের সময় সুফল বিশ্বাস কোথায় অবস্থান করছিলেন; তথ্যপ্রযুক্তির সহযোগিতা নিলেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তা জানতে পারবে।

নড়াইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুর রহমান অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে বাংলানিউজকে বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৯, ২০২২
এসআইএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।