ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

হারাগাছ থানায় হামলার ঘটনায় গ্রেফতার ৫

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১০, ২০২৩
হারাগাছ থানায় হামলার ঘটনায় গ্রেফতার ৫

রংপুর: রংপুর মেট্রোপলিটনের হারাগাছ থানার হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এর আগে ২০২১ সালের পহেলা নভেম্বর পুলিশের মারপিটে এলাকায় এক ব্যক্তি নিহত হওয়ার অভিযোগ তুলে সন্ধ্যায় থানা ঘেরাও ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।

 

মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) বিকেলে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন হারাগাছ থানার ওসি রেজাউল করিম।

এর আগে সোমবার (৯ জানুয়ারি) রাতে পুলিশ ৫ জনকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতাররা হলেন হারাগাছের সারাই আমবাজার এলাকার আবুল হোসেনের ছেলে নাহিদ হাসান, দালালের হাট নয়াটারি এলাকার মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে লাল মিয়া, নতুন বাজার এলাকার মৃত আব্দুস সামাদের পুত্র বাবু মিয়া, সারাই সাহেবপাড়া এলাকার এনামুল ইসলামের ছেলে কাঞ্চন মিয়া ও সাহেবপাড়া এলাকার আবুল কাশেমের ছেলে শুভ। তাদেরকে মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালের পহেলা নভেম্বর হারাগাছের দালালের হাট নয়াটারি এলাকার তাজুল ইসলাম (৫৫) নামে একজনকে হারাগাছ থানার পুলিশ আটক করে। এর কিছুক্ষণ পরেই তাজুল ঘটনাস্থলে মারা যান।

পরে তাকে পুলিশে পিটিয়ে হত্যার কথা ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় জনগণ হারাগাছ থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। উত্তেজিত জনগণ এসময় পুলিশের একটি ভ্যান, ৫টি মোটরসাইকেল ও থানার দরজা-জানালার ব্যাপক ভাঙচুর করে। পরে রংপুর থেকে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পুলিশ জানায়, তাজুল মাদকাসক্ত ছিল। সে হেরোইন সেবন ও বিক্রি করত। পুলিশ তাকে আটক করলে সে হার্ট অ্যাটাকে মারা যায়।
এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে সেই সময়ে থানা ভাঙচুরের মামলা করেন। ওই মামলায় ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

হারাগাছ থানার ওসি রেজাউল করিম জানান, গ্রেফতারদের মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হয়েছে।  

বাংলাদেশ সময়: ২১৩০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১০, ২০২৩
এসএ
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।