ঢাকা, সোমবার, ৯ বৈশাখ ১৪৩১, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ১২ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানকে মারধর, গ্রেফতার ৩

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৪০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৩, ২০২৩
বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানকে মারধর, গ্রেফতার ৩ ফাইল ছবি

বরিশাল: বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে।

বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) উপজেলার মাসিক সমন্বয় সভায় যোগ দিতে পরিষদ ভবনের নিচ তলায় আসার পর এ হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ।

এ ঘটনায় ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের করা মামলায় তিন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

হামলার শিকার শ্রীপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হারুন অর রশিদ বলেন, বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মাসিক সমন্বয় সভায় অংশ নিতে উপজেলা পরিষদের হল রুমে এসে পৌঁছান তিনি। এ সময় উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক দিপেন পোদ্দারের নেতৃত্বে ৮/১০ জন এসে তাকে ঘিরে ধরে মারধর করেছেন। ওই সময় হামলাকারীরা পকেট থেকে ২০ হাজার টাকাও ছিনিয়ে নিয়েছেন।

চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ আরও জানান, এর আগেও দিপেনের নেতৃত্বে তার ওপর হামলা করা হয়েছিল। ওই ঘটনায় থানায় জিডি করা হয়েছে। এ ঘটনায় মেহেন্দিগঞ্জ থানায় তিনি বাদী হয়ে মামলা করেছেন।

চেয়ারম্যান আরও বলেন, এ ঘটনার পর অন্যান্য ইউনিয়ন চেয়ারম্যানরা মাসিক সমন্বয় সভা বর্জন করেছেন। ঘটনার বিচার না হওয়া পর্যন্ত কোনো সভায় ইউনিয়ন চেয়ারম্যানরা অংশ নেবে না বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

হামলার কারণ সম্পর্কে হারুন অর রশিদ জানান, তিনি স্থানীয় এমপি পঙ্কজ দেবনাথের অনুসারী। হামলার নেতৃত্বদানকারী দিপেন পোদ্দার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র কামাল উদ্দিন খানের অনুসারী। এমপির লোক হওয়ায় তার ওপর হামলা হয়েছে বলে অভিযোগ তার।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী চরগোপালপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শামসুল বারী মনির বলেন, বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় মাসিক সমন্বয় সভা শুরুর হওয়ার কিছুক্ষণ আগে দোতলার সভাকক্ষের আসছিলেন চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ। নিচ তলায় দিপেন পোদ্দারের নেতৃত্বে ৮-১০ জন তার পথরোধ করে বেদম মারধর করে পোশাক ছিঁড়ে ফেলেন। সভাকক্ষ থেকে অন্যান্য চেয়ারম্যানরা বের হয়ে তাকে উদ্ধার করেন। পরে থানার ওসি গাড়িতে করে নিয়ে তাকে উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেন।

মেহেন্দিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় চাঁদা দাবিতে বেআইনি জনতার মারধর ও ছিনতাইয়ের অভিযোগে মামলা করেছে। মামলার এজাহারনামীয় তিন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৩, ২০২৩
এমএস/এসআইএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।