ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

রিজার্ভ ফরেস্টে আগুন, যা বলছে তদন্ত কমিটি

ডিভিশনাল সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩২ ঘণ্টা, মার্চ ২০, ২০২৩
রিজার্ভ ফরেস্টে আগুন, যা বলছে তদন্ত কমিটি

মৌলভীবাজার: বড়লেখা উপজেলার পাথারিয়া হিলস রিজার্ভ ফরেস্টের আওতাধীন সমনভাগ বিটের মাখালজুড়া ও ধলছড়া এলাকার বনাঞ্চলে আগুনের ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিকে বলা হয়েছিল তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে।

এখনও সেটি জমা না হলেও কমিটি বলছে, প্রতিবেদন প্রস্তুত আছে।

কমিটির দাবি, তদন্ত করে সদস্যরা ১ দশমিক ৮৫ হেক্টর বন পুড়ে গেছে বলে তাদের কাছে প্রমাণ রয়েছে। তারা ধারণা করছেন, জবরদখলের উদ্দেশ্যে দুষ্কৃতিকারীরা বনে আগুন দিতে পারে।

সোমবার (২০ মার্চ) তদন্ত কমিটির প্রধান ও সিলেট বন বিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) মো. মারুফ হাসান তদন্ত কাজ শেষ হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন। প্রতিবেদনও প্রস্তুত থাকলেও অফিসিয়ালি জমা দেওয়া হয়নি বলেও তিনি জানান।

এসিএফ মারুফ বলেন, বনে আগুন লাগার ঘটনায় সিলেট বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) ঘটনাটি তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করে দিয়েছিলেন। তিন কার্যদিবসের মধ্যে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছিল। গত ১৩ মার্চ চিঠি হাতে পেয়েছি। ওইদিনই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ১৬ মার্চের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার কথা ছিল। একটি ট্রেনিংয়ের কারণে দুয়েকদিন দেরি হচ্ছে। তবে দ্রুতই প্রতিবেদন জমা দেওয়া হবে।

তদন্তের বিষয়ে তিনি বলেন, তদন্তে ১ দশমিক ৮৫ হেক্টর বন পুড়েছে বলে আমরা প্রমাণ পেয়েছি। গাছপালার তেমন কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। কিছু গাছের পাতা পুড়ে গেছে। বন্যপ্রাণীরও কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।

বনে কারা আগুন লাগিয়ে থাকতে পারে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা তো আমরা দেখিনি। এ বিষয়ে বড়লেখা থানায় বিট অফিসার জিডি করেছেন। আমাদের ধারণা দুষ্কৃতিকারীরা জবরদখলের উদ্দেশ্যে বনে আগুন লাগাতে পারে।

স্থানীয় লোকজন ও পরিবেশকর্মীদের অভিযোগ, বনায়নের জন্য পরিকল্পিতভাবে সংরক্ষিত বনে আগুন দেওয়া হয়েছে। বনবিভাগের অসাধু কর্মকর্তাদের মদদে উপকারভোগীরা বনে আগুন দিয়েছে। আগুনে বনের প্রায় ৪০ হেক্টর বনভূমির বাঁশ-গাছ ও ঝোপঝাড় পুড়ে যাওয়ায় মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে পরিবেশের। জীববৈচিত্র্য পড়েছে হুমকির মুখে। প্রাণের ভয়ে বনে থাকা কয়েকটি হাতি ভারতের দিকে পালিয়ে গেছে। পাঁচ-ছয় দিন বন আগুনে পুড়েছে। বনবিভাগের লোকজনদের জানানোর পরও তারা গুরুত্ব দেননি। শুরুতে গুরুত্ব দিলে এত বন পুড়ত না। ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে বনবিভাগ।  

অবশ্য বনবিভাগের পক্ষ থেকে বলা হয়, কারও ফেলা সিগারেটের অবশিষ্ট অংশ থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। আগুনে প্রায় ১ দশমিক ৮৫ হেক্টর বনভূমি পুড়ে গেছে।

উল্লেখ্য, গত ৭ মার্চ দুপুরে সমনভাগ বিটের মাখালজুড়া ও ধলছড়া এলাকার বনাঞ্চলে আগুন লাগে। এতে কয়েক হেক্টর বনভূমির বাঁশ-গাছ ও ঝোপঝাড় পুড়ে যায়। এতে হুমকিতে পড়ে পরিবেশ ও বন্যপ্রাণীর আবাসস্থল। ঘটনাটি তদন্তে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়। এ ঘটনায় বন বিভাগের সমনভাগ বিটের কর্মকর্তা নুরুল ইসলামকে প্রত্যাহার করে সিলেট অফিসে সংযুক্ত করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩২ ঘণ্টা, মার্চ ২০, ২০২৩
বিবিবি/এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।