ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৮ মে ২০২৪, ১৯ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

মালিককে কুপিয়ে-ককটেল ফাটিয়ে স্বর্ণের দোকান লুট, ডাকাতদলের গাড়িচাপায় পথচারী নিহত

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩১৩ ঘণ্টা, জুন ৭, ২০২৩
মালিককে কুপিয়ে-ককটেল ফাটিয়ে স্বর্ণের দোকান লুট, ডাকাতদলের গাড়িচাপায় পথচারী নিহত

লক্ষ্মীপুর: লক্ষ্মীপুর শহরের সামাদ মোড়ে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে একটি স্বর্ণের দোকান লুট করেছে দুর্বৃত্তরা। এসময় দোকানের মালিক অপু কর্মকারকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে।

পালানোর সময় ডাকাতদলের গাড়ি চাপায় এক বৃদ্ধ পথচারী নিহত হয়েছেন।  

বুধবার (৭ জুন) রাত সাড়ে ৮টার দিকে আর কে শিল্পালয়ে এ লুটের ঘটনা ঘটে। আহত অপু কর্মকারকে উদ্ধার করে প্রথমে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় পরে তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়।  

দুর্বৃত্তরা কী পরিমাণ স্বর্ণ লুট করে নিয়ে গেছে, তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।  অন্যদিকে লুট করে পালানোর সময় ঢাকা-রায়পুর মহাসড়কের ইটেরপুল এলাকায় ডাকাতদের পিকআপ ভ্যানের চাপায় সফি উল্যা (৬০) নামে এক পথচারী মারা গেছেন। তিনি রাস্তা নির্মাণের শ্রমিক ছিলেন। তার বাড়ি পৌরসভার ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম লক্ষ্মীপুর এলাকায়। এসময় আহত হয়েছেন একই এলাকার ইসমাইল হোসেন (৫৫)। নিহত ব্যক্তির মৃতদেহ সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। আহত ইসমাইলকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে স্থানীয় জনতা দুজনকে আটক করে পুলিশে দিয়েছেন। তারা ডাকাতির ঘটনার সঙ্গে জড়িত বলে জানিয়েছে পুলিশ। তাদের সদর থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। তবে তাদের নাম পরিচয় জানা যায়নি।  

প্রত্যক্ষদর্শী ব্যবসায়ীরা জানান, সন্ধ্যায় একটি পিকআপ ভ্যানে করে আট থেকে ১০ জন অস্ত্রধারী দুর্বৃত্ত এসে কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এসময় চারদিকে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ককটেলের ধোঁয়ায় অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে পড়ে গোটা এলাকা। পরে দুর্বৃত্তরা আর কে শিল্পালয়ে ঢুকে সোনার গহনা লুট করে এবং দোকানের মালিক অপুকে কুপিয়ে অল্প সময়ের মধ্যেই পিকআপ ভ্যানে করে পালিয়ে যায়।  

জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর-সার্কেল) সোহেল রানা বলেন, এ ঘটনায় পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে। দুজনক আটক করা হয়েছে। তাদের গাড়ি পালিয়ে যাবার সময় দুর্ঘটনায় পড়ে একজন পথচারী মারা গেছেন। ঘটনার পর ঘটনাস্থল ও আশপাশের এলাকা থেকে বেশ কয়েকটি ককটেল উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাজুস জেলা শাখার সভাপতি হরিহর পাল। তিনি বলেন, আহত অপু কর্মকারকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। ডাকাতদল দোকানের সব স্বর্ণ নিয়ে গেছে। আমরা এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই। তাদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি। এ বিষয়ে আমরা কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলোচনা করে কর্মসূচি দেব।  

বাংলাদেশ সময়: ২৩১০ ঘণ্টা, জুন ০৭, ২০২৩
এসআই
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।