ঢাকা, বুধবার, ৫ আষাঢ় ১৪৩১, ১৯ জুন ২০২৪, ১১ জিলহজ ১৪৪৫

জাতীয়

হত্যা মামলা: ফরিদপুরে যুবকের ১০ বছরের কারাদণ্ড

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৪৮ ঘণ্টা, মে ৩০, ২০২৪
হত্যা মামলা: ফরিদপুরে যুবকের ১০ বছরের কারাদণ্ড

ফরিদপুর: ফরিদপুরে নাইম শেখ নামে ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক চালককে হত্যার দায়ে মো. আশিক শেখ (১৮) নামে এক যুবকের ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (৩০ মে) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ফরিদপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান এ রায় দেন।

এ সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। দণ্ডপ্রাপ্ত আশিক ফরিদপুর সদর উপজেলার লোকমান খার ডাঙ্গী এলাকার মজিবর শেখের ছেলে।

জানা গেছে, হত্যার ঘটনার সময় আসামি আশিক শেখের বয়স ১৬ ছিল। তবে রায়ের সময় আদালত ওই যুবকের বয়স ১৮ পার হওয়ায় আগেই কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের আটকা আদেশ বাতিল করে গ্রেপ্তারি পরোয়ানামূলে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। পরে তাকে পুলিশ প্রহরায় জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।  

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২০২২ সালের ২১ এপ্রিল নাইম শেখ তার ইজিবাইক নিয়ে বাড়ি থেকে বের হন। পরে সন্ধ্যা গড়িয়ে গেলেও বাড়িতে না ফেরায় নাইমের পরিবার বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন। অতঃপর একদিন পর নাইমের মরদেহ ফরিদপুর সদরের লোকমান খাঁর ডাঙ্গী এলাকার একটি মুরগির ঘরের পাশে থেকে মাটি খুঁড়ে প্লাস্টিকের বস্তার মধ্যে থেকে মরদেহ উদ্ধার করে। এ সময় নিহত নাইমের গলায় কাপড় পেঁচানো ও দুই বাঁধা ছিল। অতঃপর এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই রাশেদ শেখ বাদী হয়ে অভিযুক্তের নামে কোতোয়ালি থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

এ ঘটনায় পুলিশ তদন্ত শেষে ২০২২ সালের ১৪ মে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। তখন আশিকের বয়স ছিল ১৬ বছর। এজন্য তাকে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছিল।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পিপি স্বপন পাল জানান, দীর্ঘ সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে অভিযুক্ত আশিক শেখকে দণ্ডবিধির ৩০২/৩৪ ধারায় অপরাধ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণ হওয়ায় তাকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন আদালত। এ রায়ে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা পাবে, সঙ্গে সমাজে অপরাধ প্রবণতা কমে আসবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৪৫ ঘণ্টা, মে ৩০, ২০২৪
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।