ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১৮ মহররম ১৪৪৬

জাতীয়

কিশোরীকে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় ভাই-চাচাকে মারধর, গ্রেপ্তার ৫

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮২৮ ঘণ্টা, জুলাই ১০, ২০২৪
কিশোরীকে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় ভাই-চাচাকে মারধর, গ্রেপ্তার ৫

রাজশাহী: রাজশাহীতে এক স্কুলছাত্রীকে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় তার চাচা ও ভাইকে মারপিট ও হত্যাচেষ্টার মামলায় পাঁচ আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৫। বুধবার (১০ জুলাই) ভোর সাড়ে ৪টার দিকে রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার টাঙ্গন পূর্বপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এরা হলেন ওই এলাকার মো. ঈশার ছেলে মো. নাহিদ (২০), মো. আজিমের ছেলে মো. জয় (২১), মো. মিজানের ছেলে মো. মারুফ (২১), পলাশের ছেলে রাকেশ (২০) এবং মো. হাইদুলের ছেলে মাহি (২০)।  

দুপুরে র‌্যাব-৫ এর সদর দপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

র‌্যাব জানায়, প্রায় পাঁচ মাস আগে একই এলাকার দুই কিশোরী প্রাইভেট পড়ে ভ্যানযোগে বাড়ি ফেরার পথে অভিযুক্ত বখাটেরা বিভিন্ন অশ্লীল কথা ও অঙ্গভঙ্গির মাধ্যমে দুজনকে ইভটিজিং করেন। এ ঘটনার পর এক কিশোরীর চাচা তাদের ইভটিজিং করতে নিষেধ করলে তাকে মারপিট শুরু করেন অভিযুক্তরা। আরেক কিশোরীর বাবা এই বখাটেদের কাছে কৈফিয়ত চাইলে তারা তাকেও মারপিটের হুমকি দেন।

ওই ঘটনার জেরে এক কিশোরীর ভাই গত মঙ্গলবার (৯ জুলাই) বিকেলে চারঘাটের ইউসুফপুর কৃষি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ফুটবল খেলা দেখতে গেলে অভিযুক্তরা অন্তত ২০-২৫ জনকে নিয়ে লোহার রড, জিআই পাইপ, চেইন এবং বাঁশের লাঠি দিয়ে তাকে রক্তাক্ত ও জখম করেন। পরে দ্রুত তাকে উদ্ধার করে চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়।  

এই ঘটনায় রাতেই ভুক্তভোগীর বাবা বাদী হয়ে চারঘাট থানায় শ্লীলতাহানি ও হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ ও অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি র‌্যাব সদস্যরাও এই ঘটনার ছায়া তদন্ত শুরু করেন। মামলা দায়েরের ১২ ঘণ্টার মধ্যে বুধবার ভোরে ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে মামলার পাঁচ আসামিকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। পরে চারঘাট থানায় সোপর্দ করা হলে তাদের এই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়।

চারঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম সিদ্দিকুর রহমান বলেন, অভিযুক্তদের এই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে বিকেলে আদালতে পাঠানো হয়। আদালত তাদের রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২৬ ঘণ্টা, জুলাই ১০, ২০২৪
এসএস/এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।