ঢাকা, শনিবার, ১৪ মাঘ ১৪২৯, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩, ০৫ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

হরিণাকুণ্ডুতে শীতার্ত মানুষের মধ্যে শুভসংঘের কম্বল বিতরণ 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২, ২০২২
হরিণাকুণ্ডুতে শীতার্ত মানুষের মধ্যে শুভসংঘের কম্বল বিতরণ  কম্বল বিতরণ। ছবি: বাংলানিউজ

ঝিনাইদহ: ঝিনাইদহে হরিণাকুণ্ডু উপজেলায় দুস্থ ও অসহায় শীতার্ত মানুষের মধ্যে তিন শতাধিক কম্বল বিতরণ করা হয়েছে।  

দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের পক্ষ থেকে এবং দৈনিক কালের কণ্ঠ পত্রিকার শুভসংঘের আয়োজনে রোববার (০২ জানুয়ারি) সকালে হরিণাকুণ্ডু উপজেলার জেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে এ কম্বল বিতরণ করা হয়।

কম্বল বিতরণী অনুষ্ঠানে ঝিনাইদহ কালের কণ্ঠের প্রতিনিধি এম সাইফুল মাবুদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন- হরিণাকুণ্ডু উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হেসাইন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন- হরিণাকুণ্ডু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দা নাফিস সুলতানা, হরিণাকুণ্ডু পৌরসভার মেয়র মো. ফারুক হোসেন, হরিণাকুণ্ডু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুর রহিম মোল্লা, বাংলানিউজটোয়েন্টিফোরডটকমের ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট এম রবিউল ইসলাম রবি, হরিণাকুণ্ডু প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইফুজ্জামান তাজু, সাধারণ সম্পাদক এইচ মাহবুব মিলু, কমিশনার মো. রেজাউল ইসলাম, সহ-সভাপতি মোস্তাক আহম্মেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাব্বুল হুসাইন, উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক রাফেদুল হক সুমন প্রমুখ।

হরিণাকুণ্ডু উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হেসাইন বলেন, কনকনে শীতে মানুষ কাতর হয়ে পড়েছে, ঠিক তখনই বসুন্ধরা গ্রুপের অর্থায়নে গরিব ও দুস্থদের মধ্যে কম্বল দেওয়া শুরু হয়েছে। হরিণাকুণ্ডু উপজেলাবাসীর পক্ষ থেকে তাদের ধন্যবাদ জানান। এমন একটি ভালো কাজের সঙ্গে আমরা সব সময় বসুন্ধরা গ্রুপের পাশে আছি এবং থাকবো। আগামীতে হরিণাকুণ্ডু উপজেলাবাসীর জন্য আরও কম্বল দিয়ে শীতার্ত মানুষকে সহযোগিতা করার আহ্বান জানান।

বিশেষ বক্তা হিসেবে হরিণাকুণ্ডু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দা নাফিস সুলতানা বলেন, প্রথমে আমি বসুন্ধরা গ্রুপকে ধন্যবাদ জানাই, সেইসঙ্গে কালের কণ্ঠের প্রতিনিধি এম সাইফুল মাবুদ ও বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর ডট কমের ঝিনাইদহ ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট এম রবিউল ইসলাম রবিসহ কালের কণ্ঠ পত্রিকার সংগঠন শুভসংঘকে ধন্যবাদ জানান।  

তিনি বলেন, বসুন্ধরার মতো দেশের অন্যান্য প্রতিষ্ঠানকে দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানাচ্ছি। ভবিষ্যৎ দুস্থ ও অসহায় শীতার্ত মানুষের পাশে থাকবেন বলে আমি মনে করি।

হরিণাকুণ্ডু উপজেলার পোলতাডাঙ্গা গ্রামের দিনমজুর তোয়াজ উদ্দীন বলেন, এই শীতে বসুন্ধরা গ্রুপের কম্বল পেয়ে আমরা খুব খুশি। এ কম্বল পেয়ে খুশি এলাকার দিনমজুর, খেটে খাওয়া শীতার্ত সাধারণ মানুষ।
 
জানা যায়, প্রথমে ঝিনাইদহ জেলা সদরে ৫০০, কালীগঞ্জে ২০০, কোটচাঁদপুরে ৩০০ ও মহেশপুর উপজেলায় ৫০০সহ দিনব্যাপী চারটি উপজেলায় দেড় হাজার কম্বল বিতরণ করা হয়। এই তীব্র শীতে কম্বল পেয়ে শীতার্তরা বসুন্ধরা গ্রুপের জন্য দোয়া করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৮০০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০২, ২০২২
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa