ঢাকা, রবিবার, ২২ মাঘ ১৪২৯, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৩ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

রাজশাহীতে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪২৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩, ২০২২
রাজশাহীতে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন মোনাজাত করছেন আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদসহ অন্যরা। ছবি: বাংলানিউজ

রাজশাহী: রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) উদ্যোগে পুলিশ মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি জাদুঘরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ।  

সোমবার (৩ জানুয়ারি) বেলা ১১টায় রাজশাহী পুলিশ লাইনসে আনুষ্ঠানিকভাবে এই কাজের উদ্বোধন করেন তিনি।

এ সময় তার সঙ্গে আরএমপির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এরপর তিনি আরএমপির নবনির্মিত মালোপাড়া পুলিশ ফাঁড়ি, তালাইমারী পুলিশ ফাঁড়ি, রেশন স্টোর ভবন উদ্বোধন করেন।

এছাড়া পরে আইজিপি পুনাকের উদ্যোগে শীতার্তদের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ ও মেধাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন আইজিপিপত্নী জীশান মির্জা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরএমপি কমিশনার মো. আবু কালাম সিদ্দিক, রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি আব্দুল বাতেন উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে আরএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (প্রশাসন) সুজায়েত ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশন) মজিদ আলী, রাজশাহী রেঞ্জের অ্যাডিশনাল ডিআইজি (প্রশাসন ও অর্থ) জয়দেব কুমার ভদ্র, উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) রশীদুল হাসান, উপ-পুলিশ কমিশনার (বোয়ালিয়া) সাজিদ হোসেন, পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেনসহ আরএমপি ও জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় ১৯৭১ সালের ২৮ মার্চ রাজশাহী পুলিশ লাইনসে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সঙ্গে এদেশের পুলিশ বাহিনীর সম্মুখ যুদ্ধ হয়েছিল। যা রাজশাহীতে প্রথম প্রতিরোধ যুদ্ধ। এ প্রতিরোধ যুদ্ধে কমপক্ষে ১৭ জন পুলিশ সদস্য শাহাদাত বরণ করেন। এছাড়াও মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে শাহাদাতবরণকারী আরও ছয়জন বীর মুক্তিযোদ্ধা পুলিশ সদস্যসহ ২৩ জন শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পুলিশ লাইনসের ভেতরে গণকবরে সমাহিত করা হয়।

রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংরক্ষণ ও হৃদয়ে লালনের জন্য এই মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি জাদুঘর স্থাপনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ৫ হাজার ৬৪০ বর্গফুটের দোতল বিশিষ্ট রেশন স্টোর ভবনটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ৪ কোটি ৪৮ লাখ ৩৫ হাজার ১৯২ টাকা ও ২ হাজার ২৯২ দশমিক ৯০ বর্গফুটের ছয়তলা বিশিষ্ট মালোপাড়া পুলিশ ফাঁড়ি ভবনটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ১ কোটি ১১ লাখ ৭৩ হাজার ৫০০ টাকা এবং ২ হাজার ৭৭৪ স্কয়ার ফিটের ছয়তলা বিশিষ্ট তালাইমারী ফাঁড়ি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ৪ কোটি ১০ লাখ ৩৬ হাজার ৪৩২ টাকা।

বাংলাদেশ সময়: ১৪১৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৩, ২০২২
এসএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa