ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ মাঘ ১৪২৯, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১০ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

একরাতে থানার আশপাশের ১৭ বৈদ্যুতিক মিটার চুরি 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩, ২০২২
একরাতে থানার আশপাশের ১৭ বৈদ্যুতিক মিটার চুরি 

সিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ থানার মাত্র ৫শ’ মিটারের মধ্য থেকে ১৩টিসহ একরাতে মোট ১৭টি বৈদ্যুতিক মিটার চুরি হয়েছে। চুরি যাওয়া সবগুলো মিটারই চালকলের।

 

সোমবার (৩ জানুয়ারি) কামারখন্দের চালকল মালিকরা এমন অভিযোগ করেন। তারা বলেন, গত শনিবার (১ জানুয়ারি) একই রাতে থানার ৫শ’ মিটার এলাকার মধ্য থেকে ১৩টি এবং পাশের চর ধোপাকান্দি নামক এলাকা থেকে আরও চারটি মিটার চুরি হয়েছে। মিটার চুরি হওয়ায় সংশ্লিষ্ট গ্রাহকদের বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ রয়েছে। ফলে ধান সেদ্ধ করা থেকে শুরু করে চাল প্রক্রিয়াজাত করা- সব-ই বন্ধ রয়েছে। এতে বিপাকে পড়েছেন চালকল মালিকরা।

সাগর আলী নামে এক চালকল মালিক জানান, দেড় বছর আগেও মিটার চুরি হয়েছিল। ওই সময় চুরি করে নেওয়ার পর মিটারের ফ্রেমে একটি টোকেনে বিকাশ নম্বর রেখে গিয়েছিল চোরের দল। চুরি যাওয়ার পর সেই নম্বরে যোগাযোগ করলে প্রতি মিটারের জন্য তিন হাজার করে টাকা দাবি করেছিলেন চোরেরা। বিকাশে ওই টাকা দিলে তারা মিটার কোথায় আছে, বলে দিয়েছিলেন। এবার তেমন কোনো টোকেন নেই।

মেসার্স আজাহার চালকলের ম্যানেজার মো. জিন্নাহ জানান, বিদ্যুতের লাইন চালু থাকা অবস্থায় সাধারণ মানুষের পক্ষে মিটার চুরি করা সম্ভব নয়। পল্লী বিদ্যুতের লাইনম্যানদের সঙ্গে বাইরের শ্রমিকরা মিটার চুরির সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকতে পারেন।  

কর্ণসূতি গ্রামের চালকল মালিক রফিকুল ইসলাম জানান, এর আগেও মিটার চুরি হয়েছে। আবার শুরু হয়েছে মিটার চুরি। যদিও আমার মিটার অক্ষত আছে, তবুও আতঙ্কে আছি, কখন যেন আমার মিটারও চুরি হয়ে যায়। মিটার চুরি ঠেকাতে সারা রাত পাহাড়া দেই।  

সিরাজগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) অখীল কুমার সাহা জানান, কামারখন্দের ১৭টি মিটার চুরির ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। মিটার চুরির বিষয়টি খতিয়ে দেখতে পুলিশকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পক্ষ থেকে মিটার চুরি রোধে মাইকিং করাসহ লিফলেট বিতরণ ও গ্রাহকদের মিটার পাহারা দিতে বলা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে কামারখন্দ সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার শাহীনুর কবীর জানান, মিটার চুরির বিষয়টি নতুন কিছু নয়। এর আগেও মিটার চোর চক্রের চারজন সদস্যকে ঢাকার সাভার থেকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের গ্রেফতার করার পর এ এলাকায় গত প্রায় দুই বছরে মিটার চুরির কোনো ঘটনা ঘটেনি। সম্প্রতি মিটার চুরির অভিযোগ পেয়েছি। এবারও আধুনিক পদ্ধতি ব্যবহার করে চোর চক্রের সদস্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। আশা করি, খুব অল্প সময়ের মধ্যে তাদের গ্রেফতার করতে পারব।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩, ২০২১
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa