ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ মাঘ ১৪২৯, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৭ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

ফাঁদে ফেলে টাকা নিতে গিয়ে ধরা পুলিশ পরিদর্শকের স্ত্রী!

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০২৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৫, ২০২২
ফাঁদে ফেলে টাকা নিতে গিয়ে ধরা পুলিশ পরিদর্শকের স্ত্রী! কানিজ ফাতিমা আনিসা

রংপুর: প্রেমের ফাঁদে ফেলে টার্গেট করা মানুষদের জিম্মি করে অর্থ আত্মসাতের ঘটনায় বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতা ও স্ত্রীর পর এবার এক পুলিশ পরিদর্শকের স্ত্রীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  

মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) বিকেলে রংপুর নগরীর ঠিকাদারপাড়া বিকন মোড় এলাকার একটি বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।



গ্রেফতার ওই নারী কানিজ ফাতিমা আনিসার (৩৬) স্বামী রংপুর জেলা পুলিশের পরিদর্শক বলে জানা যায়।

গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে রংপুর মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি,তদন্ত) হোসেন আলী জানান, সাধারণ মানুষদের জিম্মি করে টাকা আদায় ও টর্চার সেলে নির্যাতনের অভিযোগে রোববার (২ জানুয়ারি) রাতে নগরীর গ্রান্ড হোটেল মোড় এলাকার বাড়ি থেকে শাহারুখ করিম অনিক (৩৪) ও তার স্ত্রী আসমানী আক্তারকে (২৪) গ্রেফতার করে র‌্যাব। এ ঘটনায় থানায় তাদের মামলা দায়ের হয়। ওই মামলায় আসামিরা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। জবানবন্দিতে কানিজ ফাতিমা আনিসার নাম উঠে আসে। পরে মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে অভিযান চালিয়ে তাকে বিকন মোড় এলাকার একটি বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে মহানগর পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, গ্রেফতার আনিসা জেলা পুলিশের অপরাধ বিভাগে কর্মরত এক পুলিশ পরিদর্শকের স্ত্রী।

এ বিষয়ে পুলিশ পরিদর্শক হাবিবুর রহমান বলেন, ‘কানিজ ফাতেমার সঙ্গে এখন আমার সম্পর্ক নেই। আমাদের ছাড়াছাড়ি হয়ে গেছে। ’

বিষয়টি নিয়ে রংপুর মেট্রোপলিটনের উপ-পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) মারুফুল ইসলাম বলেন, ‘শুনেছি কানিজ ফাতেমার সঙ্গে হাবিবুর রহমান থাকেন না। এ ঘটনায় আর কে কে সম্পৃক্ত তা তদন্ত করে দেখা হবে’।

এর আগে সোমবার বিকেলে রংপুর র‌্যাব-১৩ রংপুর এর সহকারী পরিচালক মাহমুদ বশির আহমেদ এক প্রেস বার্তায় জানান, বেশ কিছুদিন ধরে শাহারুখ করিম অনিক ও তার স্ত্রী  আসমানী আক্তারসহ অজ্ঞাতপরিচয় ৪/৫ জন রংপুর মহানগরীর বিভিন্ন ব্যক্তিকে টার্গেট করে তাদের সঙ্গে পরিচিত হয়ে তাকে কৌশলে নিজেদের আস্তানায় নিয়ে যেতেন। এরপর সেখানে অশ্লীল ছবি তুলে জিম্মি করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায় করতেন। এছাড়াও হত্যার ভয় দেখিয়ে বলপূর্বক অর্থ আদায়, স্ট্যাম্পে সই গ্রহণ, চুরি এবং ভয়ভীতি প্রদর্শন করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে এই চক্রটি।

একটি অভিযোগের ভিত্তিতে র‌্যাব-১৩ বিষয়টি আমলে নিয়ে সত্যতা অনুসন্ধানের জন্য তাৎক্ষণিক ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং জিম্মিকারী ব্যক্তিদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করে। এরই ধারাবাহিকতায় রংপুর র‌্যাব-১৩- এর সিপিএসসি ক্যাম্পের একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার রাতে রংপুর মহানগরীর গ্র্যান্ড হোটেল মোড় এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে অভিযুক্ত ব্যক্তির নিজ বাসা হতে তাদের গ্রেফতার করে।

মাহমুদ বশির আহমেদ আরও জানান,অভিযান চলাকালীন সময়ে র‌্যাব তার নিজ বাসার ছয়তলায় একটি টর্চার সেলের সন্ধান পায়। এই সেলে টার্গেট করা ব্যক্তিদের জিম্মি করে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করতেন তারা। সেল থেকে দুটি চাপাতি, ইলেকট্রিক শকের তার, মাদক সেবনের সরঞ্জামাদি, হাতুড়ি, ছুরি, স্ট্যাম্প,  ভিডিও ধারনের দুইটি মোবাইল ফোন এবং একটি ল্যাপটপ উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার করা দম্পতি বিভিন্ন ব্যক্তিদের জিম্মি করে টাকা আদায় এবং নির্যাতনের কথা স্বীকার করেছেন। তাদের সঙ্গে জড়িত অন্যান্য সহযোগীদের আইনের আওতায় আনার জন্য র‌্যাব বের কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ০০২৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৫, ২০২২
এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa