ঢাকা, সোমবার, ২২ মাঘ ১৪২৯, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

নদী ভাঙা মানুষের ব্যথা আমি বুঝি: প্রতিমন্ত্রী ফারুক

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৫৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৯, ২০২২
নদী ভাঙা মানুষের ব্যথা আমি বুঝি: প্রতিমন্ত্রী ফারুক

লক্ষ্মীপুর: বাংলাদেশ সরকারের পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক এমপি বলেছেন, আমি নদী ভাঙন কবলিত এলাকার মানুষ। তাই নদী ভাঙা মানুষের ব্যথা আমি বুঝি।

তারা ভিটেমাটি হারিয়ে সর্বশান্ত হয়ে পড়ে।  

রোববার (৯ জানুয়ারি) দুপুরে লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার মেঘনা নদী সংলগ্ন মাতাব্বরহাট এলাকায় তীররক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।  

জাহিদ ফারুক বলেন, এটা (বাঁধ নির্মাণ) আপনাদের প্রকল্প। সঠিকভাবে বাস্তবায়ন ও টেকসই বাঁধ যেন হয়, সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। জনপ্রতিনিধি এবং এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের নিয়ে কমিটি গঠন করা হবে। প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি লক্ষ্য রাখবে কাজ যেন সঠিকভাবে বাস্তবায়ন হয়। আর যাতে এ প্রকল্প থেকে চাঁদাবাজি না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখবেন। কোনো চাঁদাবাজকে প্রশ্রয় দিবেন না। প্রকল্প সঠিকভাবে বাস্তবায়ন হলে আপনারা ভালো থাকবেন। আপনাদের ভাগ্য পরিবর্তন হবে।  

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাকে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দিয়েছেন। তার নির্দেশেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরে নদী ভাঙা মানুষের জন্য প্রয়েজনীয় ব্যবস্থা নিই।

লক্ষ্মীপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের আয়োজনে এবং জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দের সভাপতিত্বে বাঁধ নির্মাণ কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন লক্ষ্মীপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মেজর (অব.) আবদুল মান্নান, লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক প্রকৌশলী ফজলুর রশিদ, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পূর্ব রিজিওয়ান) অখিল কুমার বিশ্বাস, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) মিমতানুর রহমান, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী ফারুক আহমেদসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধি।  

লক্ষ্মীপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়, মেঘনা নদীর ‘বড়খেরী, লুধুয়াবাজার এবং কাদিরপন্ডিতেরহাট বাজার’ তীররক্ষা প্রকল্প নামের ৩৩.২৬ কিলোমিটার দীর্ঘ প্রকল্পটি ২০২১ সালের ১ জুন পাশ করে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এতে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ হাজার ৮৯ কোটি ৯৬ লাখ ৯৯ হাজার টাকা।

গত বছরের ১৭ আগস্ট ই-জিপি টেন্ডার পোর্টাল এবং ১৮ আগস্ট পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড। টেন্ডার অনুসারে প্রায় শতাধিক লটের মাধ্যমে মোট ৩ হাজার ৪০০ মিটার কাজ হবে। রোববার (৯ জানুয়ারি) দুটি লটের কাজ উদ্বোধন করেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৯, ২০২২
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa