ঢাকা, সোমবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২০ মে ২০২৪, ১১ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

শিক্ষিকাকে আটক রেখে পাশবিক নির্যাতন!

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২২
শিক্ষিকাকে আটক রেখে পাশবিক নির্যাতন! প্রতীকী ছবি

গাজীপুর: গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার লতিফপুর এলাকায় এক স্কুল শিক্ষিকাকে ঘরের ভেতর আটকে রেখে পাশবিক নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামী, শ্বশুর-শাশুড়ি ও ননদের বিরুদ্ধে।

শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে ওই শিক্ষিকার সহকর্মীরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি করেন।

 

ভুক্তভোগী শিক্ষিকা কালিয়াকৈর উপজেলার কোটবাড়ি এলাকার বিল্লাল হোসেনের মেয়ে নার্গিস আক্তার। তিনি কালিয়াকৈর উপজেলার নামাশুলাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা।  

অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দুই বছর আগে কালিয়াকৈর উপজেলার লতিফপুর এলাকার ছানোয়ার হোসেনের ছেলে পারভেজ রানার সঙ্গে পারিবারিকভাবে নার্গিস আক্তারের বিয়ে হয়। তাদের সংসারে এক বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।  

পারভেজ রানা তার স্ত্রী নার্গিস আক্তারের কাছে বিভিন্ন সময় টাকা দাবি করে আসছিল। টাকা না দেওয়ায় পারভেজ রানা, শ্বশুর ছানোয়ার হোসেন, শাশুড়ি পারভিন বেগম ও ননদ সম্পা আক্তার ক্ষিপ্ত হন। এর জের ধরে তারা তাকে শারিরিক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছিলেন। একপর্যায়ে শুক্রবার রাতে পারভেজ রানা তার স্ত্রী নার্গিস আক্তারকে লাঠি দিয়ে এলোপাথাড়ি মারধর করে ঘরের ভেতরে আটকে রাখেন। পরে ওই শিক্ষিকা তার সহকর্মীদের মোবাইলে বিষয়টি জানান। খবর পেয়ে তার সহকর্মীরা নার্গিস আক্তারকে ওই বাড়ি থেকে উদ্ধারের পর কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় ওই শিক্ষিকা বাদী হয়ে কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।  

কালিয়াকৈর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ আলাউদ্দিন জানান, নির্যাতিতা শিক্ষিকা নার্গিস আক্তার কালিয়াকৈর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।  

বাংলাদেশ সময়: ২১০৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২২ 
আরএস/এমআরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।