ঢাকা, সোমবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২০ মে ২০২৪, ১১ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

জমজ ভাইয়ের সঙ্গে জমজ বোনের বিয়ে

উপজেলা করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২২
জমজ ভাইয়ের সঙ্গে জমজ বোনের বিয়ে

পাবনা, (ঈশ্বরদী): পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায় জমজ দুই বোন সাদিয়া খানম ও নাদিয়া খানমের সঙ্গে বিয়ে হয়েছে জমজ দুই ভাই সেলিম মাহমুদ ও সুলতান মাহমুদের।  

শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ঈশ্বরদী পৌর এলাকার উপজেলা রোডের দড়িনারিচা এলাকায় সাদিয়া ও নাহিদার বিয়ে হয়।

কনের বাড়ি ঈশ্বরদী পৌর এলাকায়, দড়িনারিচাতে অনুষ্ঠিত হয় ‘বরযাত্রী বরণ’ ও বিয়ে নিবন্ধনের কাজ।

শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় দুই কনের গায়ে হলুদ ও মুখ মিষ্টির আয়োজন ছিল। বিয়ে প্রাণবন্ত করতে আয়োজন করা হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের।  

সাদিয়া ও নাদিয়া ঈশ্বরদী শহরের দড়িনারিচা এলাকার কুদ্দুস আলীর মেয়ে। আর সেলিম মাহমুদ ও সুলতান মাহমুদ নওগাঁ জেলার মহাদেবপুর থানার সাফাপুর ইউনিয়নের কচু পুড়ি গ্রামের সেকেন্দার আলীর ছেলে।  

কনের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, কনের বাবা কুদ্দুস আলী ও মা শিল্পী খাতুনের ইচ্ছে ছিল জমজ মেয়েদের একসঙ্গে, এক অনুষ্ঠানে বিয়ে দেবেন। কিন্তু একসঙ্গে জমজ ছেলে পেয়ে যাবেন, তেমনটাও তিনি ভাবেননি। এমন বর পাওয়ায় তাঁরা অনেক খুশি।  

জমজ বর বাছাইয়ের বিষয়ে কনের বাবা আব্দুল কুদ্দুস বাংলানিউজকে জানান, ঈশ্বরদী পৌর এলাকার দড়িনারিচা বৌ-বাজারের কাপড়ের দোকানে একজন ক্রেতা আসেন। এ সময় জমজ দুই বোনকে দেখে পছন্দ হয়। পরে ওই ক্রেতার মাধ্যমে নওগাঁর জমজ পাত্রের সন্ধান পান তিনি। পরে খোঁজখবর নিয়ে পাত্রের পরিবারের কাছে প্রস্তাব পাঠানো হয়। আলাপ-আলোচনার পরে তাদের বিয়ের তারিখ ঠিক হয়।  

বরের বাবা সেকেন্দার আলী বাংলানিউজকে জানান, বিয়ের প্রস্তাব পাওয়ার পরে পরিবারের আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে কথা বলে ছেলেদের মা বিয়েতে সম্মতি দেন। উভয়পক্ষের আলোচনা সাপেক্ষে বিয়ের দিনক্ষণ ও অন্যান্য বিষয়ে নির্ধারণ করা হয়।

ব্যতিক্রম বিয়েতে এলাকার কৌতূহলী মানুষ এসেছিল জমজ বর-কনেদের একসঙ্গে দেখতে। অনেকে জমজ বর-জমজ কনের সঙ্গে সেলফিও তুলছেন। এটি ঈশ্বরদীতে ব্যতিক্রমী বিয়ে বলে মনে করছেন অনেকেই।

বাংলাদেশ সময়: ২১৩০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২২
এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।