ঢাকা, সোমবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২০ মে ২০২৪, ১১ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

জেসিআই বাংলাদেশের ‘প্রেসিডেন্সিয়াল মেজবান’ অনুষ্ঠিত 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৪৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২২
জেসিআই বাংলাদেশের ‘প্রেসিডেন্সিয়াল মেজবান’ অনুষ্ঠিত  জেসিআই বাংলাদেশের ‘প্রেসিডেন্সিয়াল মেজবান অ্যান্ড ফ্যামিলি ডে আউট’ অনুষ্ঠিত

ঢাকা: আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল (জেসিআই) বাংলাদেশের আয়োজনে গেল বছরের মতো এবারো অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘প্রেসিডেন্সিয়াল মেজবান অ্যান্ড ফ্যামিলি ডে আউট’। এবারের এই জাঁকালো আয়োজনে একসঙ্গে জেসিআই বাংলাদেশের ন্যাশনাল গভর্নিং বডি এবং লোকাল প্রেসিডেন্টদের ইনোগ্রেশন সিরমনিও অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর ১০০ফিট সংলগ্ন গ্রিন ভিলে আউটডোরে দিনব্যাপী এই বিশাল মিলেনমেলায় সংগঠনটির প্রায় ২ হাজার ৫০০ মেম্বারের সমাগম ঘটে। প্রেসিডেন্সিয়াল মেজবান অ্যান্ড ফ্যামিলি ডে আউট-এ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া এবং ইনোগ্রেশন সিরমনিতে প্রধান অতিথি ছিলেন জেসিআই ওয়ার্ল্ড ভাইস প্রেসিডেন্ট ফর এশিয়া প্যাসিফিক রাখি জৈন।

জেসিআই বাংলাদেশের ন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট নিয়াজ মোর্শেদ এলিট অনুষ্ঠানটির সভাপতিত্ব করেন।  উপস্থিত ছিলেন ফার্স্ট লেডি তাসমিনা আহমেদ শ্রাবণী। এছাড়াও জেসিআই বাংলাদেশের ন্যাশনাল গভর্নিং বডির সকল সদস্য ও লোকাল চ্যাপ্টারের লোকাল প্রেসিডেন্টরাও অংশ নেন।  

অনুষ্ঠানটি প্রসঙ্গে জেসিআই বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট নিয়াজ মোর্শেদ এলিট বলেন, ‘গত বছর আমরা প্রথমবার ‘প্রেসিডেন্সিয়াল মেজবান অ্যান্ড ফ্যামিলি ডে আউট’র আয়োজন করি। এবারও এটি অনুষ্ঠিত হলো, তবে আগেরবারের চেয়ে এবারের আয়োজন প্রায় দ্বিগুণ বড় করা হয়েছে। এটি জেসিআই বাংলাদেশের এ যাবতকালের সবচেয়ে বড় আয়োজন। ’

এই সফল উদ্যোক্তা আরো বলেন, ‘জেসিআই বাংলাদেশ তরুণদের নানামুখী উন্নয়নে কাজ করে আসছে। বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজনের মাধ্যমে তাদের নেতৃত্বে দক্ষ করে তুলতে ও সদস্যদের মধ্যে আন্তরিকতা বৃদ্ধি করতেই মূলত এত বড় আয়োজন করা হয়ে থাকে। ’

বিভিন্ন আকর্ষণীয় আয়োজনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি পরিচালিত হয়। দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানকে মূলত কয়েকভাগে সাজানো হয়। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত জেসিআই বাংলাদেশের সদস্যদের জন্য রাখা হয় নানা রকমের খেলাধুলার আয়োজন। সদস্যদের জন্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের বহুমাত্রিক ঐতিহ্যবাহী খাবারের আয়োজন মেজবানেরও ব্যবস্থা রাখা হয়।

মেজবান অনুষ্ঠিত হলে সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা শুরু হয়। যেখানে সংগঠনটির ২৫টি চ্যাপ্টারের সদস্যদের গান, নাচ ও আবৃত্তিসহ বিনোদনমূলক নানা উপস্থাপনায় সবাইকে মাতিয়ে রাখতে দেখা যায়।  

তবে এই আয়োজনে সবচেয়ে বড় আকর্ষণ ছিল জেসিআই বাংলাদেশের ২০২২ সালের জাতীয় কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠান। সকল সদস্যদের সামনে জমকালো আয়োজন জাতীয় নির্বাহী কমিটির প্রত্যেক সদস্যকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়। একই সঙ্গে তুলে ধরা হয় সংগঠনির পুরো বছরের পরিকল্পনা।

জেসিআই বাংলাদেশের ন্যাশনাল ভাইস প্রেসিডেন্ট এম কামরুল চৌধুরী ‘প্রেসিডেন্সিয়াল মেজবান অ্যান্ড ফ্যামিলি ডে আউট’র সিওসি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ইনোগ্রেশনের সিওসি ছিলেন জেসিআই বাংলাদেশের ন্যাশনাল ভাইস প্রেসিডেন্ট নাজমুল হোসেন সবুজ।

সবশেষে সদস্যদের জন্য গ্র্যান্ড র‍্যাফেল ড্র ব্যবস্থা রাখা হয়। যেখানে প্রায় শতাধিক পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, জেসিআই ১৮ থেকে ৪০ বছর বয়সী তরুণ নাগরিকদের সমন্বয়ে গড়া আন্তর্জাতিক একটি সংগঠন। মানসম্মত সমাজ গড়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশে বিশেষ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে জেসিআই বাংলাদেশ। এখন এই সংগঠনটির ১২০টিরও বেশি দেশে প্রায় চার লাখেরও বেশি সক্রিয় সদস্য রয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ২২৪৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২২
জেআইএম/এনএটি 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।