ঢাকা, শনিবার, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩ শাবান ১৪৪৫

রাজনীতি

নওগাঁয় জামায়াত-বিএনপির ১৩ নেতা কারাগারে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট   | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৩৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১০, ২০২৩
নওগাঁয় জামায়াত-বিএনপির ১৩ নেতা কারাগারে

নওগাঁ: নওগাঁর সদর, মান্দা ও নিয়ামতপুর উপজেলায় নাশকতা ও বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে করা পৃথক তিনটি মামলায় জামায়াত-বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনের ১৩ নেতাকর্মীকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।  

মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে নওগাঁ জেলা ও দায়রা জজ আবু শামীম আজাদের আদালতে ওই ১৩ জন জামিনের জন্য আবেদন করেন।

পরে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।  

আসামিপক্ষের আইনজীবী আব্দুর রাজ্জাক ও বিশ্বজিৎ সরকার সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

নওগাঁ সদর উপজেলায় বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে করা মামলায় কারাগারে পাঠানো নেতাকর্মীরা হলেন- জেলা যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জেড এইচ খান মানিক ও দেওয়ান মোস্তাকিন আহম্মেদ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি শহিদুল ইসলাম পবলু ও জেলা ছাত্রদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান বাদশা, নওগাঁ জেলা জামাতের রোকন আব্দুল আজিজ, সদস্য মো. দুলাল ও মান্দা উপজেলা বিএনপির নেতা-কর্মীরা হলেন- মান্দা উপজেলা বিএনপির সদস্য মামুনুর রশিদ, গনেশপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক বকুল চৌধুরী, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক সামসুল ইসলাম ও গনেশপুর ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি মিঠুন, বিএনপি সমর্থিত মেহেদী হাসান মিঠুন এবং নিয়ামতপুর উপজেলার নিয়ামতপুর থানা বিএনপি সহ-সভাপতি হেলাল উদ্দিন কাজী, নিয়ামতপুর থানা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক আইনুল।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত ২২ নভেম্বর সন্ধ্যার দিকে নওগাঁ শহরের কেডির মোড় এলাকায় আস্তান মোল্লা কলেজের সামনে সড়কে ককটেল বিস্ফোরণ ও দু’টি অবিস্ফোরিত ককটেল উদ্ধারের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জেলা ছাত্রলীগের সদস্য মোশাররফ হোসেন বাদী হয়ে নওগাঁ সদর মডেল থানায় বিএনপি ও এর অঙ্গ-সংগঠনের ১২ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ৪০-৫০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। ওই মামলায় এজহারভুক্ত চার আসামি দুপুরে জামিনের জন্য আবেদন করেন। তবে আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।  

অন্যদিকে, গত ২৫ নভেম্বর রাতে উপজেলার কয়াপাড়া কামারকুড়ি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অভিযান চালিয়ে মান্দা থানা পুলিশ ককটেলসহ বেশ কিছু দেশীয় অস্ত্র জব্দ করে। ওই ঘটনায় মান্দা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে মান্দা উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গ সসংগঠনের ১০ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা হিসেবে ৫০-৬০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। ওই মামলার এজহারভুক্ত চার আসামি দুপুরে নওগাঁ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির জামিনের জন্য আবেদন করেন। আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

গত ২৫ নভেম্বর বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের মামলার নাশকতা ও বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে করা ওই মামলার এজাহারভুক্ত দুই আসামি মঙ্গলবার দুপুরে নওগাঁ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির জামিনের জন্য আবেদন করেন। আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।  

চলতি সপ্তাহে নাশকতা ও বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে করা নওগাঁ সদর, মান্দা, মহাদেবপুর, পত্নীতলা ও বদলগাছী থানার মামলায় বিএনপি ও এর অঙ্গ-সংগঠনের ৩০ জন নেতাকর্মী আদালতে হাজির হয়ে জামিনের জন্য আবেদন করে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। সবগুলো মামলা গত বছরের নভেম্বর মাসে করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১০, ২০২৩
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।