ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ বৈশাখ ১৪৩১, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৮ শাওয়াল ১৪৪৫

প্রবাসে বাংলাদেশ

উন্নত বাংলাদেশের গড়ার প্রত্যয়ে মিয়ানমারে মহান বিজয় দিবস উদযাপন

ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৪৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৭, ২০২৩
উন্নত বাংলাদেশের গড়ার প্রত্যয়ে মিয়ানমারে মহান বিজয় দিবস উদযাপন

ঢাকা: উন্নত বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে মিয়ানমারে মহান বিজয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে।

ইয়াঙ্গুনের বাংলাদেশ দূতাবাসে শনিবার (১৬ ডিসেম্বর) দিবসটি উদযাপন করা হয়।

দিবসটিতে দিনব্যাপী কর্মসূচির প্রথম পর্বে ছিল জাতীয় পতাকা উত্তোলন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ এবং আলোচনা সভা। বিকেলে অনুষ্ঠিত হয় কূটনীতিক ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের জন্য সংবর্ধনা।

সন্ধ্যার পরে ছিল বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং সবশেষে আগত অতিথিদের জন্য নৈশভোজ।  

আলোচনা সভায় রাষ্ট্রদূত ড. মো. মনোয়ার হোসেন তার বক্তব্যের শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তার পরিবারের শহীদ সদস্যদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধা ও স্বাধীনতা যুদ্ধে নির্যাতিত নারীদের প্রতিও শ্রদ্ধা জানান। রাষ্ট্রদূত উল্লেখ করেন, ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বরে অর্জিত মহান বিজয় বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অর্জন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে এ স্বাধীনতার মহান স্থপতি ও অবিসংবাদিত নেতা হিসেবে উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত বলেন, জাতির পিতার নির্দেশিত পররাষ্ট্রনীতি অনুসারে বাংলাদেশ সবার সঙ্গে বন্ধুসুলভ সম্পর্ক বজায় রাখছে। তিনি তার বক্তব্যে বর্তমান বাংলাদেশের তিনটি উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য যথা জনকল্যাণমূলক গণতন্ত্র, চলমান উন্নয়ন অগ্রযাত্রা এবং জাতি গঠনে প্রবাসী বাংলাদেশিদের অবদানের কথা তুলে ধরেন।

রাষ্ট্রদূত উল্লেখ করেন যে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় নেতৃত্বে বাংলাদেশ ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত দেশে পরিণত হওয়ার লক্ষ্যে সঠিক পথে এগুচ্ছে যা বাংলাদেশকে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলায় পরিণত করবে।

বিকেলে ইয়াঙ্গুনে কূটনৈতিক মিশনের প্রধানরা, অন্যান্য কূটনীতিকরা, জাতিসংঘ ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতিনিধিরা, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নেতা, মিয়ানমারের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা এবং ইয়াঙ্গুনের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে একটি সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়।  

অনুষ্ঠানে ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব আর্ট অ্যান্ড কালচারের শিক্ষার্থীরা এবং দূতাবাসের কর্মকর্তাদের শিশুরা দেশাত্মবোধক বাংলা গানের সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করে। দূতাবাস প্রাঙ্গণে মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন পর্যায় তুলে ধরে একটি আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। আমন্ত্রিত বিশিষ্ট এ অতিথিদের জন্য বাংলাদেশি খাবারের আয়োজন করা হয়।

সন্ধ্যায় দূতাবাসের কর্মকর্তা ও বাংলাদেশ কমিউনিটির সদস্যদের অংশগ্রহণে পরিবেশিত বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের মুগ্ধ করে।

অনুষ্ঠানে মিয়ানমারে অবস্থিত বাংলাদেশ কমিউনিটির সদস্যরা, দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা তাদের পরিবারের সদস্যসহ উপস্থিত ছিলেন।  

সবশেষে অতিথিদের নৈশভোজে আপ্যায়ন করা হয়। মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে দূতাবাস প্রাঙ্গণ আলোকসজ্জা করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৭, ২০২৩
টিআর/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।