ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৮ মে ২০২৪, ১৯ জিলকদ ১৪৪৫

তারার ফুল

দেশীয় চলচ্চিত্র সালতামামি ২০১৫ (৩)

শুভর শুভ, আলোচনায় ইমন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২০৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩, ২০১৫
শুভর শুভ, আলোচনায় ইমন (বাঁ থেকে) আরিফিন শুভ ও ইমন/ছবি-নূর/বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

২০১৫ সালে এখন পর্যন্ত মুক্তি পেয়েছে মোট ৫৮টি ছবি। বছর শেষ হওয়ার আগে আরও তিন-চারটি মুক্তি পাওয়ার কথা।

ঢালিউডে মুক্তিপ্রাপ্ত এসব ছবির তারকা ও এগুলোর প্রবণতা, সাফল্য-ব্যর্থতার নিরিখে তৈরি করা হয়েছে কয়েকটি প্রতিবেদন। বাংলানিউজের বিনোদন বিভাগে ধারাবাহিকভাবে প্রকাশিত হবে এগুলো। আজ রয়েছে তৃতীয় কিস্তি।
 
২০১৫ সালে মুক্তি পাওয়া মাত্র দুটি ছবির নায়ক আরিফিন শুভ। এর মধ্যে একটি প্রচার-প্রশংসায় ছাপিয়ে গেছে সবক’টিকে। বোকাবাক্সের নায়ক হয়ে ড্রইংরুমের দর্শকদের প্রিয় ছিলেন এতদিন। কিন্তু বড়পর্দার নায়ক হওয়ার পরও যে ড্রইংরুমে পৌছানো যায়, সেটা দেখিয়েছেন তিনি। ‘ছুঁয়ে দিলে মন’-এর মাধ্যমে সাধারণ দর্শক ও ড্রইংরুমের দর্শককে এক করেছেন শুভ। এটা বেশ গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। ছবিটির অধিকাংশ গানও লুফে নিয়েছে দর্শক-শ্রোতা। শুভ এদিক দিয়ে অন্য নায়কদের চেয়ে কিছুটা এগিয়ে বলা চলে। শুভ-মমর প্রথম ছবি ‘ছুঁয়ে দিলে মন’ দেশের বাইরের দর্শকদেরও দৃষ্টি আকর্ষণ করে।

অন্যদিকে বড়পর্দার ক্রেজ মাহিকে নিয়ে শুভর ‘ওয়ার্নিং’ সাড়া জাগাতে পারেনি। ‘অগ্নি’র পর এই জুটি ঠিক সেভাবে জ্বলে ওঠেননি। গড়পড়তা ছবির কাতারে চলে গেছে এটি। শুভ সাধারণত যে মেজাজের ছবি করেন, এটি তেমন নয়। তাই ‘ওয়ার্নিং’ তার জন্য আসলেই কোনো সতর্কতা কি-না এটা অবসরে ভাবতে পারেন তিনি।
 
হার্টথ্রব এ নায়ক এ বছরই বিয়ে বন্ধনে জড়িয়েছেন। শুভ এখন ‘কলকাতার জামাই’। কারণ তার স্ত্রী অর্পিতা ওপারের মেয়ে। গত ফেব্রুয়ারিতে তারা মালাবদল করেন। চলচ্চিত্র ক্যারিয়ার যখন জমে উঠছে- এমন সময় শুভর বিয়ের ঘটনায় অনেকে অবাক হয়েছেন। কারণ সিনেমার প্রয়োজনে ‘লাভার বয়’ ইমেজটা বেশ জরুরি কি-না!
   
‘পুত্র এখন পয়সাওয়ালা’, ‘অচেনা হৃদয়’, ‘পদ্মপাতার জল’, ‘অন্তরঙ্গ’- এই চারটি ছবির নায়ক ইমন। বছরজুড়ে বড়পর্দায় হাজির ছিলেন তিনি। ছবিগুলো তাকে আলোচনায়ও রেখেছে। বিশেষ করে প্রয়াত গুণী নির্মাতা চাষী নজরুল ইসলামের শেষ ছবি ‘অন্তরঙ্গ’র নায়ক হয়ে ইমন প্রশংসিতও হয়েছেন। তার নায়িকা হয়ে ছবিতে অভিষেক হলো মডেল-অভিনেত্রী আলিশার।
 
ইমনের অভিনয় প্রশংসিত হয়েছে ‘পদ্মপাতার জল’ ছবিতে। এতে তিনি জুটি বাঁধেন মিমের সঙ্গে। তন্ময় তানসেন পরিচালিত ছবিটিকে ঘিরে প্রত্যাশা তৈরি হয়েছিলো বেশ। কিন্তু সেই ফল পাওয়া গেলো না শেষমেষ। কারণ আশানুরূপ ব্যবসা করেনি এটি। তবে নির্মাণ নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন অনেকে।
 
অন্যদিকে ইমনের ‘অচেনা হৃদয়’ও দর্শকমনে আশার সঞ্চার করেনি। এতে নতুন নায়ক এবিএম সুমনের সঙ্গে প্যারালাল চরিত্রে ছিলেন ইমন। নায়িকা ছিলেন প্রসূণ আজাদ। এ ছাড়া নার্গিস আক্তারের ‘পুত্র এখন পয়সাওয়ালা’তেও ইমন নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। ছবিটি দর্শকের কাছে পৌঁছায়নি সেভাবে। বছরে চারটি ছবিতে অভিনয় মন্দ নয়। ইমনের জন্য বছরটা আরও ভালো হতে পারতো।

শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) বাংলানিউজের বিনোদনে পড়ুন :
* চলচ্চিত্র সালতামামি ২০১৫ (৪) : ফেরদৌস-নিরব-বাপ্পি-সাইমনের মন্দের ভালো

বাংলাদেশ সময়: ১২০০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৩, ২০১৫
এসও/জেএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

তারার ফুল এর সর্বশেষ

welcome-ad