ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ বৈশাখ ১৪৩১, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৬ শাওয়াল ১৪৪৫

বিএনপি

প্রধান নির্বাচন কমিশনারের পদত্যাগ দাবি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২১৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৮
প্রধান নির্বাচন কমিশনারের পদত্যাগ দাবি রাজশাহীতে বিএনপিপ্রার্থীদের সংবাদ সম্মেলন

রাজশাহী: প্রধান নির্বাচন কমিশনারের পদত্যাগ দাবি করেছেন রাজশাহীর ছয়টি আসনের মধ্যে পাঁচ আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থীরা।

মঙ্গলবার (১৮ ডিসেম্বর) দুপুরে মহানগরীর একটি কমিউনিটি সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন থেকে এ দাবি জানানো হয়।  

রাজশাহী-৫ আসনে দলের মনোনয়ন জটিলতার কারণে ওই আসনের প্রার্থী সংবাদ সম্মেলনে ছিলেন না।

রাজশাহী-৬ আসনের প্রার্থী কারাবন্দি আবু সাঈদ চাঁদের পরিবর্তে তার ছেলে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন রাজশাহী-২ (সদর) আসনের প্রার্থী মিজানুর রহমান মিনু। তিনি অভিযোগ করেন, নির্বাচনী প্রচার শুরু হওয়ার পর থেকে বিএনপির নেতাকর্মী ও সমর্থকদের ওপর হামলা, নির্যাতন, হুমকি-ধমকি, মামলা ও গ্রেফতার করে হয়রানি করা হচ্ছে। এছাড়াও পোস্টার ব্যানার ছিঁড়ে ফেলা ও নির্বাচনী কার্যালয়ে অগ্নিসংযোগ করা হচ্ছে। এতে বিএনপির প্রার্থীরা জীবন শঙ্কার মধ্যে রয়েছেন। একের পর এক এসব অভিযোগ কমিশনে দেওয়া হলেও কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না।

মিনু বলেন, এ নির্বাচন কমিশন অযোগ্য। আর প্রধান নির্বাচন কমিশনার তামাশার নির্বাচন আয়োজন করছেন। তার মাধ্যমে নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভাব নয়। তাই আমরা অতি দ্রুত প্রধান নির্বাচন কমিশনারের পদত্যাগ দাবি করছি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী-১ আসনের সংসদ সদস্য প্রার্থী ব্যারিস্টার আমিনুল হক, রাজশাহী-২ আসনের মিজানুর রহমান মিনু, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, রাজশাহী-৩ আসনের শফিকুল হক মিলন, রাজশাহী-৪ আসনের আবু হেনা এবং রাজশাহী-৬ আসনের প্রার্থী কারাবন্দি আবু সাইদ চাঁদের ছেলে রাকিব হাসান ওয়ালিদ।

রাজশাহী-১ আসনের প্রার্থী ব্যারিস্টার আমিনুল হক বলেন, নির্বাচনে আমরা লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডের বিপরীতটাই দেখতে পাচ্ছি। যারা নৌকায় ভোট দিতে চাইছেন না, তাদের ধরে ধরে পেটানো হচ্ছে। পুলিশও নিরব ভূমিকা পালন করছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭১০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৮
এসএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।