ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

ক্রিকেট

চট্টগ্রামে আলো খুঁজে সমতা ফেরানোর লড়াই

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০ ঘণ্টা, মার্চ ২৯, ২০২৪
চট্টগ্রামে আলো খুঁজে সমতা ফেরানোর লড়াই

চট্টগ্রাম থেকে: কখনো এদিক তো কখনো ওদিক। সাকিব আল হাসান স্থির হচ্ছেন না কোথাও।

ব্যাট করছেন না, বলও না; তবুও তার ব্যস্ততার শেষ নেই। প্রথম টেস্টে হেরে বিপর্যস্ত দলে তিনি এখন একটুখানি আশার প্রদীপ। নাজমুল হোসেন শান্ত সেটি বোধ হয় বুঝতে পারছেন সবচেয়ে ভাল।

চট্টগ্রামে এসে যে দুইদিন অনুশীলন করেছে বাংলাদেশ, দুদিনই সাকিবকে নিয়ে তাই উইকেট দেখতে গিয়েছেন তিনি। শান্ত অধিনায়কত্ব করছেন বেশ কিছুদিন হয়ে গেলেও; তবুও এই ম্যাচটা আলাদা হতে পারে তার জন্য। আরও বছর পাঁচেকের বেশি আগে সাকিবের পোস্টারের সঙ্গে তার তোলা ছবি ঘুরছে ফেসবুকে।

এখন সেই সাকিবই খেলবেন তার অধীনে। শান্তর জন্য যেটি বাড়তি প্রেরণাই। অন্তত বাংলাদেশ দলের ভারপ্রাপ্ত হেড কোচ নিক পোথাস বলছেন, ‘তাকে ড্রেসিংরুমে ফিরে পেয়ে খুবই ভালো লাগছে। তার অভিজ্ঞতা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। দলকে নিংড়ে দেয়, ছেলেরা তার কাছ থেকে অনেক কিছু শিখতে পারে। ’ 
এমনিতে বাংলাদেশের জন্য চ্যালেঞ্জটা বেশ বড়। টি-টোয়েন্টি সিরিজ হেরে শুরু হয়েছিল, এরপর লঙ্কানদের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জেতে বাংলাদেশ। কিন্তু প্রথম টেস্টে হেরে গিয়েছে বেশ বড় ব্যবধানে। সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে সিরিজে সমতা ফেরানোর লড়াই এখন।

আগের ম্যাচে সিলেটে ২০ উইকেটই নিয়েছিলেন লঙ্কান পেসাররা। শরিফুল ইসলাম-খালেদ আহমেদরা ঝুলিতে পুড়েছেন ১৩ উইকেট। ব্যাটারদের ব্যর্থতাই ছিল ওই ম্যাচের বড় হাইলাইট। দুই দলের টপ অর্ডারই ব্যর্থ হন ম্যাচটিতে। ব্যবধান গড়ে দেন কেবল ধনঞ্জয়া ডি সিলভা ও কামিন্দু মেন্ডিস।

চট্টগ্রামে ব্যাটারদের সহায়ক হয়, এমন উইকেটই হওয়ার কথা। নতুন বলে কেবল একটু সুবিধা পাওয়ার কথা বোলারদের। বাংলাদেশের জন্য বাড়তি পাওয়া সাকিবের অন্তর্ভুক্তি- এখন তাদের হাতে থাকছে মিরাজ-তাইজুল-সাকিবের স্পিন ত্রয়ী। এক্ষেত্রে একাদশে কমে যেতে পারে একজন পেসার।

পরিবর্তন আছে শ্রীলঙ্কার একাদশেও। কসুন রাজিথা ছিটকে পড়েছেন। তার জায়গায় পেসার খেলবেন কি না এ ব্যাপারটি অবশ্য ঠিক করতে পারেনি লঙ্কানরা। অথবা নিজেদের পরিকল্পনা লুকিয়ে রাখার চেষ্টা আছে দলটির।

ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে প্রায় কিছুই না বলা লঙ্কান অধিনায়ক ধনঞ্জয়া ডি সিলভা বোলারদের নিয়ে কেবল বলেছেন, ‘আমাদের পেসাররাই আগের ম্যাচে ২০ উইকেট তুলেছে। স্পিনাররা এই ম্যাচে ভূমিকা রাখতে পারে। এর ফলে পেসারদের কাজ সহজ হয়ে যাবে। ফলে স্পিনার পেসাররা মিলে ভাগাভাগি করে উইকেট তুলতে পারবে।  

আগের ম্যাচে ব্যর্থ হওয়া টপ অর্ডার নিয়েও চিন্তা নেই তার, ‘আসলে তারা কেবল এক ম্যাচেই তো খারাপ করল। আগের ম্যাচগুলোয় তো ভালোই করেছে। আমার তাদের ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই। তারা এই ম্যাচে ভালো করবে বলেই আমার বিশ্বাস। ’ 

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের টেস্টে জয় একটিই- সাদা পোশাকে দেশের শততম ম্যাচে। চট্টগ্রামে ওই স্মৃতি ভালোভাবে ফিরিয়ে আনার তাড়না থাকবে তাদের। টি-টোয়েন্টি হারের পর ওয়ানডে সিরিজ জয়ের স্মৃতিটা না হয় বেশ দূরেরই মনে হবে!

বাংলাদেশ সময় : ২০০৪ ঘণ্টা, মার্চ ২৯, ২০২৪
এমএইচবি/এএইচএস
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।