ঢাকা, বুধবার, ১৯ মাঘ ১৪২৯, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৯ রজব ১৪৪৪

শিক্ষা

দাবি মানার আশ্বাসে তেজগাঁও সড়ক ছাড়লেন শিক্ষার্থীরা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৪৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৮, ২০২২
দাবি মানার আশ্বাসে তেজগাঁও সড়ক ছাড়লেন শিক্ষার্থীরা

ঢাকা: বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাসে প্রায় চার ঘণ্টা পর তেজগাঁওয়ের সড়ক ছেড়েছেন বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুটেক্স) শিক্ষার্থীরা। করোনা ভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় সশরীরে ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধসহ পাঁচ দফা দাবিতে সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন তারা।

শনিবার (৮ জানুয়ারি) সকালে পাঁচ দফা দাবি আদায়ে উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন শিক্ষার্থীরা। তখন দাবি না মানায় এবং উল্টো করোনা যার হবে দায়ভার তাকেই বহন করতে হবে- বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের এমন বক্তব্যের পর বেলা ১১টার দিকে রাস্তায় অবস্থান নেন শিক্ষার্থীরা।

প্রায় চার ঘণ্টা পর বিকেল ৩টার দিকে উপাচার্য ও পুলিশের আশ্বাসে অবরোধ প্রত্যাহার করে ক্যাম্পাসে ফেরেন আন্দোলনকারীরা।

তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী আবুল কালাম বাংলানিউজকে বলেন, দীর্ঘ সময় সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকায় আশপাশের সড়কে তীব্র যানজট তৈরি হয়। আমরা শিক্ষার্থীদের অনুরোধ করেছি, ভিসির সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। ভিসির আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষার্থীরা সড়ক ছেড়ে চলে গেছেন। বর্তমানে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

শিক্ষার্থীদের পাঁচ দফা দাবি হলো-
১. অবিলম্বে হলসমূহে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যঝুঁকি থেকে রক্ষা করতে হল বন্ধ করতে হবে।  

২. অবিলম্বে অফলাইনের বিকল্প পদ্ধতিতে পরীক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। এক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তিন দিন থেকে সর্বোচ্চ এক সপ্তাহ সময় নিয়ে নতুন রুটিনে অফলাইনে বিকল্প পদ্ধতিতে পরীক্ষা নিতে পারে। অথবা বর্তমান রুটিনের প্রথম দুটি পরীক্ষা পিছিয়ে বাকি পরীক্ষাগুলো আগের রুটিন অনুযায়ী নিতে পারে।  

৩. করোনাকালীন চলমান টার্ম পরীক্ষা শেষ হয়ে গেলে অবশ্যই চলমান টার্মের পরীক্ষা শেষ হওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যেই আগামী টার্মের ক্লাস অনলাইনে শুরু করতে হবে এবং দিনপ্রতি অন্তত চারটি ও সর্বোচ্চ ছয়টি ক্লাস নিতে হবে।  

৪. করোনা পরিস্থিতি খারাপ হলে এবং প্রশাসনের সিদ্ধান্তে বিলম্ব হওয়ার কারণে যদি কোনো শিক্ষার্থী হলে আক্রান্ত বা সংক্রমিত হয়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে, তার ও তার পরিবারের সার্বিক দায়ভার প্রশাসনকে নিতে হবে।

৫. দাবিগুলো আমলে নিয়ে আজকের মধ্যেই মৌখিক স্বীকৃতি এবং আগামী তিন দিনের মধ্যে প্রশাসনকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে নোটিশ আকারে প্রকাশ করতে হবে। তা নাহলে সশরীরে স্বাস্থ্যঝুঁকি নিয়ে যে কোনো শিক্ষা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ থেকে বিরত থাকবেন শিক্ষার্থীরা।

আরও পড়ুন...
** সশরীরে ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধের দাবিতে সড়কে বিক্ষোভ

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৮, ২০২২
পিএম/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa