ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৩ জুন ২০২৪, ০৫ জিলহজ ১৪৪৫

নির্বাচন ও ইসি

বাগমারায় সান্টু, পুঠিয়ায় সামাদ, দুর্গাপুরে চেয়ারম্যান হলেন শরীফ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯৫১ ঘণ্টা, মে ২২, ২০২৪
বাগমারায় সান্টু, পুঠিয়ায় সামাদ, দুর্গাপুরে চেয়ারম্যান হলেন শরীফ

রাজশাহী: ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে রাজশাহীর পুঠিয়া, দুর্গাপুর ও বাগমারা উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে দুইজন জেলা কমিটির ও একজন পৌর আওয়ামী লীগের নেতা জয় পেয়েছেন।

মঙ্গলবার (২১ মে) রাতে নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং অফিসাররা নিজ নিজ উপজেলায় এই ফলাফল ঘোষণা করেন। বেসরকারিভাবে তাদের বিজয়ী ঘোষণাও করা হয়।

ঘোষিত ফলাফলে রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন- জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সামাদ মোল্লা, বাগমারায় নির্বাচিত হয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জাকিরুল ইসলাম সান্টু এবং দুর্গাপুর উপজেলায় নির্বাচিত হয়েছেন পৌর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক শরিফুজ্জামান শরীফ।

রিটার্নিং কর্মকর্তাদের ঘোষিত বেসরকারি ফলাফল অনুযায়ী, বাগমারা উপজেলায় ঘোড়া প্রতীক নিয়ে জাকিরুল ইসলাম সান্টু ৪৮ হাজার ২৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আনারস প্রতীক নিয়ে আবদুর রাজ্জাক সরকার ওরফে আর্ট বাবু পেয়েছেন ৪ হাজার  ৩২১ ভোট। আর্ট বাবু উপজেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক।

রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী প্রার্থী আবদুস সামাদ মোল্লা আনারস প্রতীক পেয়েছেন ২৬ হাজার ৬৬৫ ভোট।  

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আহসানুল হক মাসুদ ঘোড়া প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২৩ হাজার ৬৭৯ ভোট।

রাজশাহীর দুর্গাপুরে শরিফুজ্জামান শরীফ মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ৪২ হাজার ১১৩ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল মজিদ সরদার ঘোড়া প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২৭ হাজার ৩৭২ ভোট।

রাজশাহীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও রিটার্নিং অফিসার কল্যাণ চৌধুরী জানান, দ্বিতীয় ধাপে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বাগমারায় জাকিরুল ইসলাম সান্টু, দুর্গাপুরে শরিফুজ্জামান শরীফ ও পুঠিয়ায় আবদুস সামাদ মোল্লা নির্বাচিত হয়েছেন। তাদের বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়েছে।

রাজশাহীর এই তিন উপজেলায় সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে দেড় হাজার পুলিশ, ১০ প্লাটুন বিজিবি, ৩ হাজার ৭৪০ জন আনসার সদস্য, ৩৩ জন ভ্রাম্যমাণ ম্যাজিস্ট্রেট, র‌্যাবের ৬টি টিম দায়িত্ব পালন করেছেন।

রাজশাহীর তিনটি উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ছিল ৬ লাখ ৫২ হাজার ৯০৮ জন। মোট ভোটকেন্দ্র ছিল ২৬৭টি। এর মধ্যে বাগমারা উপজেলায় ১২২টি, পুঠিয়ায় ৭৮ ও দুর্গাপুরে ৬৭টি ভোট কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হয়েছে।

মঙ্গলবার (২১ মে) ভোটগ্রহণের সময় কেবল রাজশাহীর দুর্গাপুরে একটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। তবে অন্য দুই উপজেলায় কোন বড় ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর মেলেনি।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৪৯ ঘণ্টা, মে ২২, ২০২৪
এসএস/এফআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।