ঢাকা, সোমবার, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪ রজব ১৪৪৪

নির্বাচন ও ইসি

তৈমূর লিখিত অভিযোগ করেননি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২২
তৈমূর লিখিত অভিযোগ করেননি

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন  (নাসিক) নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারের অভিযোগ প্রসঙ্গে নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোস্তাইন বিল্লাহ বলেছেন, আমরা স্বতন্ত্র প্রার্থীর কাছ থেকে লিখিত, ফোনে বা অন্য কোনো মাধ্যমে অভিযোগ পাইনি। আমরা নির্বাচনের রুটিন ওয়ার্ক করছি।

দাগী আসামিদের বিরুদ্ধেই অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

শনিবার (১৫ জানুয়ারি) নাসিক নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, আমরা ভোটের সব সরঞ্জাম কেন্দ্রে পৌঁছে দিয়েছি। আমাদের ম্যাজিস্ট্রেটরা কাজ করছেন। আমাদের আরও ৩০ জন ম্যাজিস্ট্রেট কাজ করবে। আমাদের পুলিশে ৭৫টি ও র‍্যাবের  ৬৫টি টিম মাঠে থাকবে। এছাড়া বিজিবিও আমাদের সঙ্গে কাজ করবে। কেন্দ্রগুলোতে ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ এবং বিজিবি কাজ করেছে। আমাদের পুলিশ সুপার এবং র‍্যাব কর্মকর্তারাও আছেন। আমাদের গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত রয়েছে। নির্বাচনের জন্য যারা থ্রেট হতে পারে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আশা করি সুষ্ঠু পরিবেশে ভোটাররা ভোট দিতে পারবেন।

সিসি ক্যামেরা খুলে ফেলার প্রসঙ্গে মোস্তাইন বিল্লাহ তিনি বলেন, আমাদের সব কেন্দ্রে সিটি ক্যামেরা নেই। কিছু কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা রয়েছে। সেগুলো খুলে ফেলার মতো কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। আমরা সবাইকে আশ্বস্ত করতে চাই আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কাজ করছে। আমাদের গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত রয়েছে। নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে হবে।

বহিরাগত প্রসঙ্গে ডিসি মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের কথা জানি না সেটা সরকারি প্রতিষ্ঠান নয়। এছাড়া কোনো সরকারি বাসস্থানে প্রশাসনের লোক ছাড়া কাউকে স্থান দেওয়া হয়নি। আমরা সব কেন্দ্রকে গুরুত্ব সহকারে দেখছি। সবাই নির্বিঘ্নে ভোটকেন্দ্রে এসে ভোট দিতে পারবেন।

তিনি বলেন, করোনা প্রটোকল মেনে ভোট দিতে হবে। ভোটকেন্দ্রে সুরক্ষাসামগ্রী থাকবে। আমরা সে ব্যাপারে সচেতন আছি। আমরা প্রার্থীদের প্রতি আহ্বান জানাবো সবাইকে সচেতন করার। এতদিন সবাই শান্তিপূর্ণভাবে প্রচারণা চালিয়েছেন। আশাকরি ভোটের দিনও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ আপনারা বজায় রাখবেন।

জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, আমরা এখন পর্যন্ত ২০০ মামলা করেছি, একজনকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে এবং লক্ষাধিক টাকা জরিমানা করেছি নির্বাচনের আচরণবিধি লঙ্ঘনের জন্য।

বাংলাদেশ সময়: ১৫০৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২২
এমআরপি/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa