ঢাকা, সোমবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ শাবান ১৪৪৫

বিনোদন

‘মহীনের ঘোড়াগুলি’র প্রতিষ্ঠাতা সদস্য তাপস দাস

তাপসের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলো পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১২৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৮, ২০২৩
তাপসের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলো পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার তাপস দাস

‘তবুও কিছুই যেন ভালো যে লাগে না কেন...’। সত্যিই কিছু ভালো লাগছে না ‘মহীনের ঘোড়াগুলি’র ভক্তদের।

কারণ গুরুতর অসুস্থ এই গানটির জনক তাপস দাস অর্থাৎ বাপি দা।

১৯৭৬ সালে কলকাতায় প্রতিষ্ঠিত প্রথম বাংলা স্বাধীন রক ব্যান্ড ‘মহীনের ঘোড়াগুলি’। গৌতম চট্টোপাধ্যায়, বিশ্বনাথ চট্টোপাধ্যায়, প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, রঞ্জন ঘোষাল, এব্রাহাম মজুমদার, তাপস দাস ও তপেশ বন্দ্যোপাধ্যায়- এই সাতজন সঙ্গীতশিল্পীকে নিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয় সঙ্গীতদলটি।

সত্তর থেকে নব্বইয়ের দশকে আধুনিক বাংলা গানের ধরন বদলে দিয়েছিলো তারা। এই দলের সবচেয়ে পুরনো সদস্যদের একজন তাপস দাস। যিনি সবার কাছে বাপী দা নামেই পরিচিতি। তিনি ভালো নেই।

তাপস দাস বাপী দুরারোগ‍্য ক‍্যান্সারে আক্রান্ত। ৬৮ বছর বয়স প্রবীণ এই শিল্পীর চারটি কেমোথেরাপি নেওয়া হয়েছে আগেই। সম্প্রতি তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে বলে খবর।

তাপস দাসের চিকিৎসায় প্রচুর অর্থ প্রয়োজন। যার যোগান দিতে নাজেহাল পরিবার। প্রিয় বাপিদার জন্য সামাজিকমাধ্যমে সাহায্য প্রার্থণা করেছিলেন সিধু, গৌরব চট্টোপাধ্যায়, অর্ক মুখোপাধ্যায় ও রূপম ইসলামসহ আরো অনেকে।  

এবার রূপম নিজেই জানালেন, বাপিদার চিকিৎসাভার কাঁধে তুলে নিয়েছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তত্ত্বাবধানে গেল ৩ জানুয়ারি এসএসকেএমে ভর্তি হন তিনি।

বাপিদার সঙ্গে দুটি ছবি পোস্ট করে রূপম ইসলাম লেখেন, গেল ১ জানুয়ারি আমি একটি পোস্ট করেছিলাম বাপিদার অসুস্থতার ব্যাপারে, যেখানে লিখেছিলাম যে- কোনো রাজনৈতিক দলের সাহায্য তিনি নেবেন না। একমাত্র সরকারের সাহায্য গ্রহণ করতে তার আপত্তি থাকবে না। কারণ পশ্চিমবঙ্গ সরকার কোনো একটি রাজনৈতিক দল নয়। সেই পোস্ট দেখে ঠিক তার পরদিনই পশ্চিমবঙ্গ সরকার এগিয়ে এসেছেন এবং বাপিদার চিকিৎসার সম্পন্ন দায়িত্ব তারা নিয়েছেন। এ জন্য তারা আমার কৃতজ্ঞতাভাজন হলেন।

রূপম আরো লেখেন, পাশাপাশি আমরা, বাংলার শিল্পী সম্প্রদায় আমাদের সামর্থ্য অনুযায়ী যে এগিয়ে আসতে পেরেছি, সে জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানালাম।  

তাপস দাসের চিকিৎসার ব্যাপারে আপডেট জানিয়ে তিনি লেখেন, আপাতত বাপিদার চিকিৎসা চলছে এসএসকেএম হসপিটালে। গেল ৩ তারিখ তিনি ভর্তি হয়েছেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তত্ত্বাবধানে। ওখানেই তার চিকিৎসা চলছে। আমি আজ দেখা করলাম তার এবং সুতপাদির (তাপস দাসের স্ত্রী সুতপা দাস) সঙ্গে। অনেকটা আড্ডা হলো।  

এদিকে, সদ্য বিদায়ী বছরের ২৫ ডিসেম্বর পশ্চিমবঙ্গের বাংলা সংগীতমেলায় নাকে রাইলস টিউব লাগানো অবস্থায় হুইল চেয়ারে বসেই গান গাইতে দেখা যায় তাপস দাসকে। সেই ভিডিও সামাজিকমাধ্যমে এখন ভাইরাল।  

এ প্রসঙ্গে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে তাপস দাসের স্ত্রী সুতপা দাস বলেছিলেন, এটা হয়তো বাপি বলেই পেরেছে। নাকে রাইনস টিউব নিয়ে গান গাওয়া, মানুষ ভাবতেও পারে না।  

বাংলাদেশ সময়: ২১২৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৮, ২০২৩
এনএটি 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।