ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

জমি কিনেও ‘ঠিকানাহীন’ ৮০ বেদে পরিবার   

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২৩
জমি কিনেও ‘ঠিকানাহীন’ ৮০ বেদে পরিবার
  

হবিগঞ্জ: হবিগঞ্জের মাধবপুরে নিজেদের কেনা জমিতে বসবাস করলেও পৌরসভা থেকে হাউজ হোল্ডিং নম্বর না দেওয়ায় নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ৮০টি বেদে পরিবার।
 
আইন অনুযায়ী পৌরসভার ভেতরে কেউ জমি কিনলে হাউজ হোল্ডিং নম্বর পাওয়ার কথা।

কিন্তু স্থানীয় বাসিন্দাদের বাধার মুখে বেদেদের সেই সুবিধা দিচ্ছে না পৌরসভা।
 
৮০টি বেদে পরিবার মাধবপুর পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডে জমি কিনে প্রায় ২৫ বছর ধরে বসবাস করছে। তাদের অনেকে স্থায়ী ভোটারও। কিন্তু নিজেদের কেনা জমির হোল্ডিং নম্বর পেতে পৌরসভায় আবেদন করলে, নানা অজুহাতে তাদেরকে সেটি দেওয়া হচ্ছে না। ফলে বাড়ি করতে না পাড়ায় ছোট্ট ঝুপড়ি ঘরে বসবাস করতে হচ্ছে অতিকষ্টে।
 
বেদে পল্লীর সর্দার নূরুল হক বলেন, আমরা বাংলাদেশের ভোটার। দুই যুগ আগে মাধবপুর পৌরসভায় জমি কিনে সেখানে স্থায়ীভাবে বসবাস করছি, কিন্তু হাউজ হোল্ডিং নম্বর দিচ্ছে না পৌরসভা। ফলে আমরা পৌরসভার কোনো সুবিধা পাচ্ছি না। কোনো কাগজপত্রে স্থায়ী ঠিকানা লেখার সুযোগ নেই। বাচ্চাদের কোনো বিদ্যালয়ে ভর্তি করা যাচ্ছে না।
 
পল্লীর বাসিন্দা এক নারী বলেন, আমরা ব্যবসা করি, যেমন শিঙা লাগানো, পানি থেকে সোনা খোঁজা, বিষতেল বিক্রি ইত্যাদি। তবে ব্যবসা তেমন চলে না। কিছু লোক খুব অসহায় অবস্থায় আছে। শীতকালে বাচ্চাগুলো শীতে কাবু থাকে। এতো কিছুর পর অনেক কষ্টে আমরা জমি কিনলেও পৌরসভার হোল্ডিং নম্বর না পাওয়ায় কোনো সুবিধা ভোগ করতে পারছি না।
 
এ বিষয়ে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও বিশেষ জনগোষ্ঠী গবেষক ড. আশরাফুল করিম সারোয়ার বলেন, বাসস্থান সাংবিধানিক মৌলিক অধিকার। বেদেদের হাউজ হোল্ডিং নম্বর পাওয়ার দাবি যৌক্তিক।
 
তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে পৌরসভার ঊর্ধ্বতন একজন কর্মকর্তা বলেন, স্থানীয়দের বাধার কারণে বেদে পরিবারগুলোকে হাউজ হোল্ডিং নম্বর দেওয়া হচ্ছে না।
 
এ বিষয়ে হবিগঞ্জ স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক মুহাম্মদ সাদিকুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, বেদেদের হাউজ হোল্ডিং নম্বর দিতে আইনি কোনো বাধা নেই। শিগগির এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাধবপুর পৌরসভাকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৫০৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৩
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।