ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৩ মে ২০২৪, ১৪ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

তাপদাহে রিকশাচালক-পথচারী‌দের‌ মাঝে পু‌লি‌শের পা‌নি ও স্যালাইন বিতারণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২৪ ঘণ্টা, এপ্রিল ২৩, ২০২৪
তাপদাহে রিকশাচালক-পথচারী‌দের‌ মাঝে পু‌লি‌শের পা‌নি ও স্যালাইন বিতারণ

ঢাকা: দেশে বয়ে যাওয়া তাপদাহে অতিষ্ঠ জনজীবন। তাপপ্রবাহে প্রতিদিনই হাসপাতালে বাড়ছে রোগীরা সংখ্যা।

এমন তাপদাহের মধ্যে রিকশা চালক, পথচারী‌দের‌ মধ্যে পানি ও স্যালাইন বিতরণ করে করেছে রাজধানীর শাহবাগ থানার পুলিশ।  

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) বিকাল ৩ টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, পে‌ট্রোল ই‌ন্সে‌পেক্টরের নেতৃত্বে রিকশা চালক, বাসের হেলপার, বাসের যাত্রীসহ সাধারণ মানুষের মধ্যে পানি ও স্যালাইন বিতরণ করা হয়েছে।  

তীব্র দাবদাহের মধ্যে পুলিশের পক্ষ থেকে পানি এবং স্যালাইন পেয়ে পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে সাধারণ মানুষ বলেন, এই তীব্র গরমের মধ্যে পুলিশের পক্ষ থেকে পানি ও স্যালাইন বিতরণ অত্যন্ত প্রশংসনীয় একটি কাজ। এই কাজ চলমান থাক‌লে আরও ভা‌লো হ‌বে।

পথচারী র‌ফিকুল ইসলাম ব‌লেন, শুধু প‌লিশ না যা‌দের সমর্থ আ‌ছে তাদের সবাই‌কে এ‌গি‌য়ে আশা উ‌চিত। পু‌লিশ আজ যে কাজ‌টি কর‌ছেন এটা দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। সাধারণ জনগ‌ণের পা‌শে দাঁড়া‌নোর জন্য শাহাবাগ থানা পু‌লিশ‌দের‌কে ধন্যবাদ জানাই। আমরা চাই পুরো দেশজুড়ে এভাবে সাধারণ মানুষের মধ্যে পানি এবং স্যালাইন বিতরণ করা হোক।  

এসময় শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোস্তাজিরুর রহমান বলেন, তাপদাহে কারণে হিটস্ট্রোক করে মানুষ মারা যাচ্ছে। এজন্য আমরা মানুষের মধ্যে পানি বিতরণ করছি।  আমাদের ডিএমপি কমিশনার মহোদয়ের নির্দেশে আমরা সবার মধ্যে পানি বিতরণ করছি।  

শাহবাগ থানার পেট্রোল ইন্সপেক্টর সরদার বুলবুল আহমেদ বলেন, আমরা বিনামূল্যে সাধারণ মানুষের মধ্যে পানি এবং স্যালাইন বিতরণ করছি। মানুষের বিপদে পুলিশ সবসময় ছিল, আছে এবং থাকবে। আমরা ক্ষুদ্র সামর্থ্যের ভিতর থেকে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।
  
প্রচণ্ড তাপদাহে মানুষ যাতে পানি পান করে সেজন্য আমরা মানুষকে উদ্বুদ্ধ করছি। যতদিন পর্যন্ত তাপদাহ থাকবে ততদিন পর্যন্ত আমাদের পক্ষ থেকে পানি এবং স্যালাইন বিতরণ চলমান থাকবে।  

সমাজের সামর্থ্যবান ব্যক্তিদের প্রতি আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, যারা পথচারী আছেন; অসহায় ও দরিদ্র মানুষ আছেন, আমরা যেন সবাই তাদের পাশে দাঁড়াই।

বাংলাদেশ সময়: ২০১৬ ঘণ্টা, ২৩ এপ্রিল, ২০২৪
এমএমআই/এমএম
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।